সওদাগরটুলায় কাবিন নামার জায়গায় কোর্ট কমিশন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ৩০ নভে ২০২১ ০৬:১১

সওদাগরটুলায় কাবিন নামার জায়গায় কোর্ট কমিশন

সুরমাভিউ:-  সিলেটে সৎমা’র কাবিনের জায়গা জবর দখলে মেতে উঠেছেন সতীন ও তার ছেলেরা। এ ঘটনায় আদালতে মামলা হয়েছে। আদালতের আদেশে শনিবার (২৭ নভেম্বর) নালিশা ভূমির সরেজমিন কমিশন করা হয়েছে। জবরদখল প্রচেষ্টার এ ঘটনা ঘটছে নগরের সওদাগরটুলায়।

জানা গেছে, নগরের জিন্দাবাজারস্থ মোশারত মাইক হাউসের স্বত্বাধিকারী মরহুম আবুল হোসেন দুদু মিয়া পরপর তিনটি বিয়ে করেন। প্রথম স্ত্রী পারুল বেগমের বিয়ের কাবিন নামায় মোহরানা বিনিময়ে পারুল বেগমের নামে নিজ বাড়ির ২.৩৭ শতক ভূমি সাফকবালা বিক্রি করে দেন। যা সিলেট নগরের সওদাগরটুলা ৩৭ নং বাসার একাংশ এবং মিউনিসিপ্যালিটি ৯১ নং মৌজার হাল জরিপী ১২২৪ খতিয়ানের ৮৫৪৮ দাগের ভূমি।

পরবর্তীতে পারুল বেগম তার একমাত্র কন্যা সন্তান রাবেয়া বেগমকে উত্তরাধিকারী রেখে মারা যান। তখন তার কন্যা রাবেয়া বেগম তামাদী মুদ্দতে ওই ভূমির একক ভোগ দখল করতে থাকেন। রাবেয়া বেগম বর্তমানে স্থায়ীভাবে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করেন। তিনি তার স্বত্বদখলীয় এই ভূমিসহ সকল সহায় সম্পত্তি দেখভালের জন্য নগরের নয়াসড়কের জনৈক সেনাজুর রহমানকে আম’মোক্তার করে রেখে যান। পারুল বেগমে ছাড়াও মরহুম আবুল হোসেন দুদু মিয়া পরপর আরো দুটি বিয়ে করেন। সেই দুই স্ত্রীর গর্ভজাত অনেক ছেলে ও মেয়ে রয়েছেন। পারুল বেগমের কাবিননামার পরিত্যক্ত এ সম্পত্তি তার উত্তরাধিকারী মেয়ে রাবেয়া বেগমের স্বত্ব দখলে রয়েছে। সম্প্রতি মৃত পারুল বেগমের সতীন মিরা বেগম ও অন্য ছেলেরা পারুল বেগমের কাবিননামার এ ভূমি জবর দখলে মেতে উঠেছেন। তারা কয়েকবার দেয়াল ভেঙ্গে ওই ভূমি তাদের বসতভিটের সাথে একাকার করার চেষ্টা করেন। তাদের প্রতিরোধ করতে না পেরে পারুল বেগমের মেয়ে রাবেয়া বেগম আদালতের শরণাপন্ন হয়েছেন। সম্প্রতি তার নিযুক্তীয় আম-মোক্তার সেনাজুর রহমান বাদী হয়ে সিলেটের সিনিয়র যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ২১৪/২০১৯ নং স্বত্ব মোকদ্দমা দায়ের করেন। এতে তিনি মিরা বেগম, ছেলে আবাদ হোসেন, এমদাদ হোসেন, ইফরাদ হোসেন মূল বিবাদী করেন। পরে অন্যদেরও মোকাবিলা বিবাদী করেন।

মামলায় বিবাদীদের বিরুদ্ধে কাবিননামার ওই ভূমিতে নিষেধাজ্ঞার আদেশ প্রার্থনা করেন। শুনানী শেষে আদালত সরেজমিন দখল ও পজেশন রিপোর্ট প্রদানের জন্য এক সদস্যের একটি কমিশন গঠন করেন। কমিশন সদস্য এডভোকেট মোঃ ময়নুর রহমান সানাজ শনিবার নালিশা ভূমির সরেজমিন কমিশন করেন। এসময় তিনি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাক্ষ্য ও বক্তব্য গ্রহণ করে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ