কানাইঘাটে সরকারী রাস্তা কেটে ফিসারী নির্মাণে বিপাকে গ্রামবাসী

প্রকাশিত:শুক্রবার, ২৬ নভে ২০২১ ০৫:১১

কানাইঘাটে সরকারী রাস্তা কেটে ফিসারী নির্মাণে বিপাকে গ্রামবাসী

আমিনুল ইসলাম কানাইঘাট:-  কানাইঘাটে সরকারী রাস্তা দখল করে মৎস্য ফিসারী নিমার্ণ করায় চরম বিপাকে পড়েছেন গ্রামবাসী। জানা যায় উপজেলার বড়চতুল ইউপির হারাতৈল উত্তর (বেতু) গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের পুত্র মনির উদ্দিন তার মৎস্য ফিসারীর সাথে সরকারী রাস্তা কেটে প্রায় ১৬ শতক জমি নিজ দখলে নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে গ্রামবাসী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) মুনমুন নাহার আশা বরাবরে অভিযোগ দায়ের করলে সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন ইউনিয়ন ভুমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা আব্দুল ওয়াদুদ। শুক্রবার সরেজমিনে দেখা যায় হারাতৈল মৌজার ১৮৮৩ দাগে গ্রামবাসীর একমাত্র চলাচলের সরকারী রাস্তার প্রায় ১৬ শতক জমি দখল করে মালিকানাধীন বিশাল মৎস্য ফিসারীর সাথে যুক্ত করা হয়েছে। যার কারনে গ্রামের হাজারো মানুষ চরম বিপাকে পড়েছেন। তারা কেবল মাত্র ফিসারীর পাড় দিয়ে পায়ে হেটে অবশিষ্ট সরকারী রাস্তায় উঠে হাট-বাজারে যেতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে হারাতৈল উত্তর (বেতু) গ্রামের ফখরুল ইসলাম, আব্দুল মুছব্বির, মুদরিছ আলী, হারিছ উদ্দিন, আহসান উল্লাহ, সতীশ চন্দ্র দাস, দুলু লাল দাস, ছিদ্দেক আলী, উপেন্দ্র কুমার দাস, রতিশ চন্দ্র দাস সহ বেশ কয়েকজন জানান এ রাস্তা দিয়ে তাদের গ্রামের সকল মানুষ চলা চল করে হাট-বাজার করেন।

বর্তমানে সরকারী রাস্তাটি প্রভাবশালীর দখলে যাওয়ায় তারা ফিসারীর পাড় দিয়ে পায়ে হেটে চলাচল করতে হয়। এ রাস্তা দিয়ে তাদের ছেলে মেয়েরা স্কুলে যেতে হয়। কিন্তু ফিসারীতে পড়ে যাওয়ার ভয়ে অনেক কোমলমতি শিশুদের তারা স্কুলে পাঠায়নি বলে দাবী করেছেন। এমনকি রাস্তাটির এ অংশ দখল হওয়ায় তারা কোন ধরণের বিপদে বা সামাজিক অনুষ্টানে যান-বাহন নিয়ে গ্রামে প্রবেশ কিংবা বাহির হতে পারেন না। তারা অবিলম্বে সরকারী রাস্তাটি দখল মুক্ত করে গ্রামবাসীর স্বাভাবিক চলাচলের সুযোগ করে দিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবী করেন।

এদিকে ইউনিয়ন ভুমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা আব্দুল ওয়াদুদ জানিয়েছেন তিনি বৃহস্পতিবার সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন এবং দীর্ঘ এ রাস্তাটির বিদ্যমান থাকলেও একটি অংশ ফিসারীর মধ্যে রয়েছে যা রেকর্ড-পত্রের মাধ্যমে তিনি দেখতে পেয়েছেন বলে জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ