খালেদা জিয়াকে দ্রুত বিদেশে পাঠানো  না হলে সরকার হটানোর আন্দোলন : আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ২৫ নভে ২০২১ ০৯:১১

খালেদা জিয়াকে দ্রুত বিদেশে পাঠানো  না হলে সরকার হটানোর আন্দোলন : আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকি

সুরমাভিউ:-  সিলেট মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকি বলেছেন, সরকারকে বাধ্য করব দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে জনগণের সমস্ত অধিকার ফিরিয়ে দিতে। সমাবেশ থেকে সরকারকে খুব পরিষ্কার ভাষায় আমরা বলে দিতে চাই যে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে তাকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠানোর ব্যবস্থা করুন।’ ‘তা না হলে সমাবেশের মধ্য দিয়ে এবার যে আন্দোলন শুরু হলো সেই আন্দোলন আপনাকে গদিচ্যুত করবে।’ সরকার পরিকল্পিতভাবে খাবারের সাথে স্লোপয়জোন দিয়ে খালেদা জিয়া মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে।

সিলেট মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক নজিবুর রহমান নজিবের সভাপতিত্বে ও মহানগর সদস্য সচিব শাহ নেওয়াজ বক্ত চৌধুরী তারেক এবং জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মকসুদ আহমদের যৌথ পরিচালনায় জাতীয়তাবাদী যুবদলের বিক্ষোভ সমাবেশ ও সাবেক ৩বারের প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার স্থায়ী মুক্তি এবং বিদেশে সু-চিকিৎসার দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) দুপুর ২.৩০ মিনিটে সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের উদ্যোগে সিলেট নগরীর চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। সমাবেশে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত পাঠ করেন সিলেট জেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কয়েছ আহমদ।

যুবদল কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি ও সিলেট বিভাগীয় টিমের প্রধান শহীদুল্লাহ তালুকদার বলেন, আমাদের সবার লক্ষ্য এক এবং অভিন্ন। তবে পথ আলাদা হতে পারে। আজকে আমাদের দেহ মন এনেসথেসিয়া দিয়ে অবশ করে রাখা হয়েছে। তিনি জাতির একজন নেতা। তার প্রয়োজনীয়তা সবাই আমরা অনুভব করি। আজকে দেশের ৯৯.৯৯ শতাংশ মানুষ খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসা চায়।

যুবদল কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি আনছার উদ্দিন বলেন, আমরা আবার বলছি অবিলম্বে দেশনেত্রীকে মুক্তি দিতে হবে। এরই মধ্যে আইন মন্ত্রীর কাছে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের বিশেষজ্ঞ আইনজীবীরা স্মারকলিপি প্রদান করেন। শুধু একজন ব্যক্তি তাকে মুক্তি দিচ্ছেন না। কারণ তারা জনগণের ভোট ও আদালতকে তোয়াক্কা করেন না। যা খুশি তাই করছেন। সেই ব্যক্তি হলেন শেখ হাসিনা।

উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য এডভোকেট মোমিনুল ইসলাম মুমিন, মহানগর যুবদলের সদস্য আনোয়ার হোসেন মানিক, মহানগর সদস্য তোফাজ্জল হোসেন বেলাল, জেলা সদস্য আখতার আহমদ, জেলা সদস্য আশরাফ ফরহাদ, মহানগর সদস্য শাহিবুর রহমান সুজান, জেলা সদস্য এডভোকেট সাঈদ আহমদ, মহানগর সদস্য লুৎফুর রহমান, সোহেল মাহমুদ, নজরুল ইসলাম, জেলা সদস্য লিটন আহমদ, অলি চৌধুরী, মহানগর সদস্য এমদাদুল হক স্বপন, জেলা সদস্য অলিউর রহমান, মহানগর সদস্য কল্লোল জ্যোতি বিশ্বাস জয়, মাহফুজ চৌধুরী, মহানগর সদস্য মুজাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, জেলা সদস্য রায়হান আহমদ, মহানগর সদস্য জামিল আহমদ, জেলা সদস্য আলী আহমদ আলম, মহানগর সদস্য মির্জা সম্রাট, জেলা সদস্য জিএম বাপ্পি, মহানগর সদস্য উসমান গনি, মকসুদুল করিম নুহেল, মতিউর রহমান আফজল, মাসুক আহমদ, আমিনুল ইসলাস আমিন, মহানগর সদস্য জয়নুল ইসলাম, ইসহাক আহমদ, যুবদল নেতা হাবিবুর রহমান রুমেল, অর্জুন ঘোষ, মামুন আহমদ মিন্টু, লায়েক আহমদ, আব্দুল মঈন, ১২নং ওয়ার্ড যুবদলের আহ্বায়ক লাহিন আহমদ, ৫নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক মঈনুল ইসলাম, ৬নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক আমিন আহমদ, ৭নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক শাহিন আজাদ খোকন, ১১নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক খালেদ আহমদ হোসাইন, ৯নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক বশির উদ্দিন, ১৮নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক ফজলুর কাদের সিদ্দিকী পারভেজ, ২৬নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক বাবলু হোসেন হৃদয়, ৮নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক আজাদুর রহমান আজাদ, ২৭নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক মঈন খান, ২নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক আদনান আহমদ, ২৪নং ওয়ার্ড আহ্বায়ক নাজিম আহমদ।
উপস্থিত ছিলেন, এনামুল হক সোহেল, আব্দুল মুকিত জামি. সাহেদ আহমদ, আরজু আহমদ, জিতু আহমদ, আফজল খান পাপলু, আহমেদ শিপন, ফিরোজ আহমদ, কাওছার খান, নাজির আহমদ, নুর মোহাম্মদ খান তাইফুর, তানভির আহমদ, ছবরুর ইসলাম নেপুর, শেখ নজরুল ইসলাম, মানিক খান, আব্দুল হান্নান, মামুনুর রহমান মইন, হোসেন আহমদ তালুকদার, নাহিয়ান আহমদ রিপন, হাসান আহমদ রাসেল, রিজভী জামাল, শরিফ আহমদ, সাগর আহমদ, রেজওয়ান আহমদ, রাহাত আহমদ টিপু, সুমায়েল খান, ইয়াসিন খান লিমন, আরমান আহমদ মুন্না, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক আব্দুল কাদির জিলা, সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক আবুল হাসনাত, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক বাবর আহমদ রনি, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক সাজ্জাদ হোসেন দুদু, বিশ্বনাথ উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক সুরমান খান, ওসমানীনগর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক  ফজল আহমদ জনি, বালাগঞ্জ উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক ফয়জুল হক, সদর উপজেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আইনুল হক, ওসমানীনগর যুগ্ম আহ্বায়ক আহবাবুর রহমান, বিশ্বনাথ যুগ্ম আহ্বায়ক শামসুল ইসলাম, গোলাপগঞ্জ যুগ্ম আহ্বায়ক সালাহ উদ্দিন, বালাগঞ্জ যুগ্ম আহ্বায়ক সেলিম উদ্দিন, কোম্পানীগঞ্জ যুগ্ম আহ্বায়ক গিয়াস উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ পৌর যুগ্ম আহ্বায়ক আজিজুল হক মুন্না, গোয়াইনঘাট যুগ্ম আহ্বায়ক জাহিদ আহমদ, জিএম শফিক, সদর যুগ্ম আহ্বায়ক কামাল উদ্দিন, মঈন উদ্দিন, আলীবুর, দক্ষিণ সুরমা যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহমদ, আজমল হোসেন তুহিন, কাওসার আহমদ নামর, সাহেল আহমদ, আতাউর রহমান, জৈন্তাপুর যুগ্ম আহ্বায়ক সাব্বির আহমদ, সেলিম আহমদ, কোম্পানীগঞ্জ যুগ্ম আহ্বায়ক রজন আহমদ, মুস্তাকিম আহমদ ফরহাদ, আরমান আহমদ, আব্দুল বাছিত ফরিদ, গোলাপগঞ্জ উপজেলা যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজ আশরাফ প্রমুখ।

এছাড়াও সমাবেশে সিলেট মহানগর যুবদল এর অন্তর্ভুক্ত ২৭টি ওয়ার্ড যুবদল, জেলা যুবদল এর অন্তর্ভূক্ত ১৩টি উপজেলা ও ৫টি পৌর সভা নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ