কানাইঘাটে চাঁদা আদায়ে বিধবা নারীর আপত্তিকর ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় গ্রেফতার-২

প্রকাশিত:বুধবার, ১৫ সেপ্টে ২০২১ ০৭:০৯

কানাইঘাটে চাঁদা আদায়ে বিধবা নারীর আপত্তিকর ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় গ্রেফতার-২

কানাইঘাট প্রতিনিধি:-  কানাইঘাটে চাঁদা আদায়ের দায়ে ৬ সন্তানের জননী বিধবা নারীর আপত্তিকর ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় এ পর্যন্ত দুইজনকে গ্রেফতার করেছে কানাইঘাট থানা পুলিশ।

গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পাশর্বর্তী জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে আব্দুল্লাহ ও সায়েদ উল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত আরো দুইজন পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য কানাইঘাট উপজেলার ঝিংগাবাড়ী ইউনিয়নের আগতালুক গ্রামের পঞ্চাশোর্ধ্ব এক নারীর কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের লক্ষে একই গ্রামের রককত উল্লাহর বখাটে পুত্র আব্দুল্লাহ, রফিক আহমদের পুত্র সায়েদ উল্লাহ, সিরাজুল হকের পুত্র আব্দুল জব্বার ও নুর উদ্দিনের পুত্র আব্দুল্লাহ মিলে গত ২৩ আগস্ট রাতে ঐ মহিলাকে যৌন হেনস্তা করে আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করেন। পারিবারিক সুত্রে জানা যায় ৬ সন্তানের জননী বয়স্ক ঐ মহিলার দুই ছেলে প্রবাসে রয়েছেন। মেয়েদের বিয়ে দিয়ে বর্তমানে তিনি একা বসবাস করছেন। এই সুযোগে তারা ঐ মহিলার আপত্তিকর ভিডিও ধারন করেন। এরপর ভিডিও ভাইরালের ভয় দেখিয়ে তারা ঐ মহিলার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা নেন। পরে তাদের চাহিদা মত ৪ লক্ষা টাকা চাঁদা না দেওয়ায় গত ১২ সেপ্টেম্বর রবিবার ধারণকৃত ভিডিও টি তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়। শেষ পর্যন্ত উপায় না পেয়ে ঐ মহিলা কানাইঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন।

একাধিক সূত্রে জানা যায় স্থানীয় গোষ্ঠী প্রথা দ্বন্দে গ্রামের হারুন রশিদ গংদের সাথে জসিম গংদের পাল্টাপাল্টি মামলা মকদ্দমা চলছে। যার কারনে বরকত উল্লার পুত্র আসামী আব্দুল্লাহ ঐ মহিলার ঘরে মাঝে মাঝে রাত্রি যাপন করতো। কিন্তু ঐ মহিলার সাথে একই বাড়ির সিরাজ উদ্দিনের ছেলে ঐ মামলার আসামী জব্বারদের বিরোধ ছিল। সব মিলিয়ে প্রতিশোধ নিতে ঐ মহিলাকে জিম্মি করে তারা যৌন হেনস্তার ভিডিও ধারণ করে।