পাহাড় বিলাসের পাশে শতাধিক কদমগাছ কর্তন করেছে দুর্বৃত্তরা

প্রকাশিত:শুক্রবার, ০৬ আগ ২০২১ ০৬:০৮

পাহাড় বিলাসের পাশে শতাধিক কদমগাছ কর্তন করেছে দুর্বৃত্তরা
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:-  সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সলুকাবাদ ইউপির পাহাড় বিলাসের পাশে চেংবিল গ্রামে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে ২০ শতাংশ জায়গায় রোপণ করা হয়েছিল প্রায় ১২০ টি কদমগাছ।

নতুন রোপণ কৃত ১২০ টি কদমগাছ (৩-আগস্ট)রাতের আঁধারে গাছের সাথে শত্রুতা করে  কর্তন করেছে দুর্বৃত্তরা।
গাছের মালিক মোঃ ইসমাইল জানান, পাহাড় বিলাসের সৌন্দর্য্য বর্ধনের জন্য এবং  বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা পর্যটকদের একটি শীতলময় সবুজ গাছের ছায়াবিথী উপহার দেওয়া উদ্দেশ্যে প্রায় ৩ বিঘা জমিতে বাগান করার পরিকল্পনা গ্রহণ করি। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে প্রাথমিকভাবে প্রায় ২০ শতাংশ জমিতে কদম গাছ রোপন করি। কিন্তু গাছের  সাথে এই বর্বর ঘটনায় আমি মানসিক ভাবে আহত হয়েছি। এনিয়ে  বিশ্ববম্ভরপুুর থানায় একটি সাধারন ডাইরী করি।

উক্ত ঘটনায় কাউকে সন্দেহ হয় কিনা জানতে চাইলে   মোঃ ইসমাইল বলেন, গাছগুলো রাতের বেলায় কাটা হয়েছে।তাই কাউকে নির্দিষ্ট করে বলার সুযোগ নেই।

তিনি আরও জানান, রাতের আঁধারে যে দুর্বৃত্তরা বাগান ধ্বংসের মাধ্যমে আমার উদ্যোগকে দমিয়ে রাকার অপচেষ্টা চালাচ্ছে আমি এদের  দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই।

তিনি বলেন আমি ঘটনাটি সলুকাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান ও আমার  ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য   কে জানিয়েছি । আশা করি তদন্ত সাপেক্ষে প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। চেংবিল গ্রামের প্রবীণ মোরব্বী হাছেন আলী বলেন

আমার বয়ষ ৯০ বছর আমি জীবনে এমন ভাবে গাছের সাথে শত্রুতা  করতে দেখিনি অবশ্যই দোষিদের খুজে বেরকরে আইনগত ব্যাবস্তা গ্রহন করা হোক, চেংবিল গ্রামের আব্দুল হামিদ বলেন দোষিদের উপযুক্ত শাস্হি প্রদান করা হোক তা হলেই এমন দৃষ্টতা আর কেউ দেকাবেনা। চেংবিল গ্রামের মোরব্বি বিল্লাল মিয়া বলেন যারাই এমন ঘটনাটি করেছে আইনের মাধ্যমে এদের শাস্হি মুলক ব্যাবস্হা নেওয়া  হোক।

সুনামগঞ্জ জেলা রেঞ্জ কর্মকর্তা চয়নব্রত চৌধুরি বলেন ঘটনাটি দুঃখজনক   আইগত ভাবে এটি অপরাধজনক কাজ হয়েছে  লকডাউন শেষ হলে জায়গাটি দেকে আসবো। এ বিষয়ে বিশ্বম্ভরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ  ইকবাল হোসেন জানান বিষয়টি আমার জানা নেই খোজ নিয়ে দেখবো।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ