কোম্পানীগঞ্জের টুকের বাজারে অটোরিকশার স্ট্যান্ডের নামে চাঁদাবাজি

প্রকাশিত:সোমবার, ৩১ মে ২০২১ ০২:০৫

কোম্পানীগঞ্জের টুকের বাজারে অটোরিকশার স্ট্যান্ডের নামে চাঁদাবাজি

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি:-  কোম্পানীগঞ্জের টুকের বাজারে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার স্ট্যান্ডে চাঁদাবাজির অভিযোগে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন এক অটোরিকশা চলক। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার স্ট্যান্ডে সিরিয়াল ঠিক করে দেওয়ায় নামে কয়েকজন শ্রমিক নেতা নিরীহ শ্রমিকদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা উঠিয়ে নিজেরাই আত্মসাৎ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্ট্যান্ডে চাঁদাবাজি এখন নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাড়িয়েছে। চাঁদাবাজিতে লিপ্ত রয়েছে শক্তিশালী একটি সিন্ডিকেট। প্রকাশ্যে এসব চাঁদাবাজি চললেও এব্যাপারে প্রশাসন অনেকটা নির্বিকার। নেয়া হচ্ছেনা কোন কার্যকারী পদক্ষেপ।

এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কোম্পানীগঞ্জ-টুকের বাজার-ভোলাগঞ্জ সড়কে প্রায় এক হাজার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা প্রতিদিন চলাচল করে। প্রতিটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা থেকে দৈনিক ৩০ টাকা হারে শ্রমিকদে কাছ থেকে অবৈধভাবে চাঁদা আদায় করা হয়। নির্ধারিত হারে চাঁদা পরিশোধ না করে কারো পক্ষে স্ট্যান্ড ব্যবহার করা সম্ভব হয়না। চালকরা স্বেচ্ছায় চাঁদা দিতে না চাইলে মারধর করে কেড়ে নেয়া হয় চাবি। নতুন কোন গাড়ি স্ট্যান্ডে অন্তর্ভুক্ত হতে চাইলে সালামি হিসেবে ২০০০ থেকে ২৫০০ টাকা হারে চাঁদা দিয়ে ভর্তি হতে হয়।

চাঁদাবাজীকে কেন্দ্র করে গত ২৬ মে সকাল সাড়ে ৬ টায় চাঁদাবাজরা কয়েকজন অটোরিকশা ড্রাইভারকে পিটিয়ে জখম করে ও তাদের স্ট্যান্ড ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেদিন ইসলামপুর গ্রামের আহত অটোরিকশা চালক আলিম এর পিতা ফারুক মিয়া বাদি হয়ে মাসুক মিয়া, মাহফুজ মিয়া ও আশিক মিয়াকে আসামী করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেন।

মামলার বাদী ফারুক মিয়া জানান চাঁদাবাজদের অত্যাচারে সাধারণ ড্রাইভারদের জীবন অতিষ্ঠ। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি কেএম নজরুল বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ