বিশ্বনাথে পূর্ব বিরুধের জের ধরে কুপিয়ে জখম : হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রি ২০২১ ০৫:০৪

বিশ্বনাথে পূর্ব বিরুধের জের ধরে কুপিয়ে জখম : হাসপাতালে ভর্তি
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:-  সিলেটের বিশ্বনাথে জমিজমা সংক্রান্ত বিরুধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় মকবুল হোসেন (৩০) নামের একজন গুরুত্বর আহত হয়েছেন। তাকে দ্রুত সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত ডাক্তার।
সে চানপুর গ্রামের আরশ আলীর ছেলে। রবিবার বিকেলে উপজেলার চানপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরশ আলী বাদি হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ২/৩জনকে আসামি করে বিশ্বনাথ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। (মামলা নং-২০, তারিখ ২৪/০৪/২০২১ইং)।
আসামিরা হচ্ছে, মৃত ছরকুম আলীর পুত্র আলা উদ্দিন (৬০), ফজর উদ্দিনের পুত্র গিয়াস উদ্দিন (৪৮), আলা উদ্দিনের পুত্র কামরুল ইসলাম (২৫), মনির উদ্দিনের পুত্র ইসলাম উদ্দিন (৪০), মৃত ছরকুম আলীর পুত্র ফজর উদ্দিন (৬৫)।
মামলার এজহার সুত্রে জানা গেছে, বাদি আরশ আলীর সাথে বিবাদী আলা উদ্দিন গংদের দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরুধ চলে আসছে।
এ নিয়ে আদালতে তাদের স্বত্ব মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এরই জের ধরে আসামিরা রবিবার বিকেলে গরু সীমগাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে আলা উদ্দিন গংরা মকবুল হোসেনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে মারাত্বক আহত হন মকবুল হোসেন। তার মাথায় ও শরীরের ভিবিন্ন স্থানে একাধিক আঘাত রয়েছে।
আহত মকবুলের পিতা জানান, আসামিরা এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আছে। তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে পারেনা। তারা আমার ছেলেকে প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্যে কৃষি জমিতে আক্রমণ করেছিল। আল্লাহর দয়ায় আমার ছেলেকে জীবিত পেয়েছি। বর্তমানে আমার ছেলে হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আমি প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচার দাবি করছি। তবে, বিবাদী আলা উদ্দিনের বাদি এ ঘটনায় তিনি ও তার ছেলে আহত হয়েছেন। মামলার ভয়ে হাসপাতালে যেতে পারচ্ছেন না।
এ ব্যাপারে থানার এসআই মোয়াজ্জেম হোসেন সাংবাদিকদের জানান, আহত ব্যক্তির অবস্থা বর্তমানে কিছুটা ভাল। আসামিরা পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছেনা বলে তিনি জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ