সিলেটে ওসি মাইনুল জাকিরের আন্তরিকতা; মুগ্ধ সবাই

প্রকাশিত:সোমবার, ১৯ এপ্রি ২০২১ ০৪:০৪

সিলেটে ওসি মাইনুল জাকিরের আন্তরিকতা; মুগ্ধ সবাই

সিলেট অফিস।। সারাদেশের ন্যায় সিলেটেও চলছে কঠোর লকডাউন।  আর এই লকডাউন চলাকালে এক বৃদ্ধের প্রতি সিলেট এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকিরের আন্তরিকতা দেখে মুগ্ধ হয়েছে এলাকার জনগন ।

দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষার অতন্ত্র প্রহরি হিসাবে কাজ করছে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী। তবে সম্প্রতি কিছু সংখ্যক পুলিশ সদস্যদের ন্যাক্কার জনক আচরণ দেখে দিন দিন আস্থা হারাচ্ছে জনগন, কিন্তু আজকে এক ওসির দায়িত্ব পালন দেখে মুগ্ধ উপস্তিত জনতা। এ সময়ের সৎ, দক্ষ, সাহসী এ অফিসার যেন সমগ্র পুলিশ বাহিনীর গর্ব, জনগণের আস্থা ধরে রাখতে এমন পুলিশ অফিসারের প্রয়োজন বলে মনে করেন স্থানীয়রা। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ওসির মানবার এই ছবিটি ভাইরাল হয়েছে। মানুষের প্রশংসায় ভাসছেন এই ওসি মাইনুল জাকির।

গতকাল ১৮ এপ্রিল রোববার লকডাউন চলাকালে এয়ারপোর্ট রোডে চেকপোস্টে এক বৃদ্ধ মাস্ক পড়ে পায়ে হেঁটে যাচ্ছেন। কোথাও কোন গাড়ি না পেয়ে পায়ে হেঁটে চিকিৎসা করানোর জন্য রওনা দেন এই মানুষটি। এমন সময় ওসি ওই লোকটিকে ধরে ধরে রাস্তা পার করে কিছু সময় চেয়ারে বসিয়ে রাখেন এবং একটি সিএনজি ঢেকে এনে গাড়িতে উঠিয়ে হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে দেন।

এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির বলেন,`মানুষ মানুষের জন্য। আজকে কঠোর লকডাউন চলাকালে এয়ারপোর্ট রোডে চেকপোস্টে বয়সের ভারে নতজানু বৃদ্ধ মানুষটি চিকিৎসা করানোর জন্য রাস্তা দিয়ে হেঁটে হেঁটে যাওয়ার সময় এই নতজানু বৃদ্ধাকে রাস্তা পার করে কিছু সময় চেয়ারে বসিয়ে রেখে একটি গাড়ি ঢেকে এনে গাড়িতে উঠিয়ে দিলাম। আসুন আমরা সবাই চাচার মতো মাস্ক ব্যবহার করি এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি। অর্থাৎ মাস্ক পরার অভ্যেস করি করোনামুক্ত দেশ গড়ি।

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ