বিশ্বনাথে জোরপূর্বক দেয়াল নির্মাণের কাজ বন্ধ করলো পুলিশ

প্রকাশিত:সোমবার, ১৯ এপ্রি ২০২১ ০৮:০৪

বিশ্বনাথে জোরপূর্বক দেয়াল নির্মাণের কাজ বন্ধ করলো পুলিশ
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:-  বাড়ির বাটোয়ারা নিয়ে বিরোধপূর্ণ সীমানায় জোরপূর্বক দেয়াল নির্মাণ করার কাজ বন্ধ করে দুটি পক্ষকে সংঘর্ষ থেকে রক্ষা করেছে সিলেটের বিশ্বনাথ থানা পুলিশ। উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চৈতননগর গ্রামের শাহেদ আলম (৩৩) ও চাচাতো ভাই বদরুল আলম (৩৬) পক্ষের মধ্যে ওই বিরোধ চলছে। সোমবার বিকেলে চৈতননগর গ্রামে গিয়ে ওই জোরপূর্বক দেয়াল নির্মাণ কাজ বন্ধ করেন থানার এসআই মোয়াজ্জেম হোসেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে বাড়ির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দুই চাচাতো ভাইদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। ইতিমধ্যে তাদের মধ্যে একাধিকবার হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনাসহ কোর্টে মামলা মোকদ্দমাও চলমান রয়েছে। সম্প্রতি বদরুল আলম গংদের হামলায় শাহেদ আলমের বাম হাত ভাঙ্গাসহ তারা তিন ভাই গুরুতর আহত রয়েছেন।
এনিয়ে গ্রামের লোকজন একাধিকবার সালিশ বৈঠক করলেও কোনো লাভ হয়নি। এরই ধারাবাহিকতায় সমাধানের লক্ষ্যে থানা পুলিশের উদ্যোগে আগামী বুধবার (২১ এপ্রিল) থানায় উভয় পক্ষকে নিয়ে বৈঠকের তারিখ ছিলো। কিন্তু এই তারিখের পূর্বে বুধবার বদরুল আলম গংরা জোর পূর্বকভাবে বিরোধপূর্ণ স্থানে দেয়াল নির্মান কাজ শুরু করেন। এতে বেশ কয়েকটি আম গাছের চারা, কদম ও কলা গাছ কেটে ফেলেন বদরুল আলম গংরা।
এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। খবর পেয়ে থানা পুলিশের ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে দেয়াল নির্মাণের কাজ বন্ধ করেন এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।
বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মূসা বলেন, বৈঠকের পূর্বে দেয়াল নির্মাণের কথা শুনার পর পুলিশ পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করে হয়েছে। আর সেখানকার পরিস্থিতিও শান্ত রয়েছে বলে তিনি জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ