সিলেটে টুপি-পাঞ্জাবি পরায় দুই প্রভাষককে ‘অব্যাহতি’, যা বললেন কর্তৃপক্ষ

প্রকাশিত:শনিবার, ০৩ এপ্রি ২০২১ ০২:০৪

সিলেটে টুপি-পাঞ্জাবি পরায় দুই প্রভাষককে ‘অব্যাহতি’, যা বললেন কর্তৃপক্ষ

নিজেস্ব প্রতিনিধি:- সিলেটের জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের দুই প্রভাষক টুপি ও পাঞ্জাবি পরে নিয়মিত ক্লাসে আসায় অব্যাহতি প্রদানের অভিযোগ উঠার পর সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকজুড়ে তোলপার শুরু হয়।

দুই প্রভাষক দীর্ঘদিন ধরে জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে দায়িত্ব পালন করে আসছেন বলে জানা যায়। অভিযোগ উঠা দুই প্রভাষক হলেন-পদার্থবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক আব্দুল হালিম ও আইসিটি বিভাগের প্রভাষক মুজাহিদুল ইসলাম।

এদিকে অব্যাহতি প্রদানের অভিযোগ উঠার পর থেকে জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয় এবং এই ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার (৩ এপ্রিল) কলেজের সামনে মানববন্ধন করে তারা।

প্রতিবাদ সভায় বিভিন্ন স্লোগানে উত্তাল হয়ে উঠেছে কলেজের আশাপাশ। পরে কলেজ কর্তৃপক্ষদের পক্ষ বলা হয়- এ দুই প্রভাষককে অব্যাহতি দেয়া হয়নি। বরং প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি মানতে না পারলে তারা স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিতে পারবেন- এমনটাই বলা হয়েছে।

কলেজের সামনে মানববন্ধনকালে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে এ কথা বলেন কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল আরিফুল ইসলাম রেজা।

কলেজ কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে তিনি বলেন, অনলাইনে যে বিষয়টি ভাইরাল হয়েছে তা সত্যি নয়। প্রভাষক আব্দুল হালিম ও মুজাহিদুল ইসলামের বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি বা তাদের চাকরিচ্যুত করা হয়নি। গভর্নিং বডির ৫২ তম মিটিংয়ে তাদেরকে ডেকে প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি মানার জন্য কঠোরভাবে বলা হয় এবং ৩১ মার্চের আগে তাদেরকে তিনবার শোকজ পাঠানো হয়। কিন্তু বার বারই তারা দুজন প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি মানতে অনীহা প্রকাশ করেন।

সর্বশেষ ৩১ মার্চ গভর্নিং বডির মিটিংয়ে তাদেরকে ডেকে বলা হয়- প্রতিষ্ঠানের পোষাকবিধি না মানলে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিতে পারেন। তবে তাদেরকে চাকরিচ্যুত করা হয়নি। এটাই তাদের বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সর্বশেষ সিদ্ধান্ত বা পদক্ষেপ।

শেষ খবর পাওয়ায় পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চলছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ