সুনামগঞ্জের শাল্লায় ফেইসবুক পোস্ট নিয়েই হিন্দুদের গ্রামে হামলা : সংবাদ সম্মেলনে জানালেন পুলিশ সুপার

প্রকাশিত:রবিবার, ২১ মার্চ ২০২১ ০৮:০৩

সুনামগঞ্জের শাল্লায় ফেইসবুক পোস্ট নিয়েই হিন্দুদের গ্রামে হামলা : সংবাদ সম্মেলনে জানালেন পুলিশ সুপার

ফরিদ মিয়া সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:- ফেইসবুকের পোস্ট দেওয়া নিয়েই সুনামগঞ্জের শাল্লার হিন্দুদের গ্রাম নোয়াগাঁওয়ে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ সূত্র ধরেই তদন্ত করছে পুলিশ। রবিবার দুপুরে সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান এ কথা জানান।

পুলিশ সুপার বলেন, হামলার বিষয়টি ফেইসবুকে পোস্ট দেওয়া নিয়ে। ১৬ তারিখে ঝুমন দাস ওরফে আপন নামের এক যুবক হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হক বিষয়ে কুরুচিপূর্ণ পোস্ট দেয়। তার অনুসারীরা এটি দেখার পরে আশপাশের গ্রাম থেকে সংগঠিত হয়ে ওই গ্রামের দিকে আসতে থাকে। পুলিশ জানার পর রাত ৯টায় শাল্লা থানার ওসি পুলিশ ফোর্সসহ গ্রামে এসে পরিস্থিতি শান্ত করে।

পুলিশ তাদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারে, মামুনুল হক তাদের পছন্দের লোক। তারা ঝুমনের পোস্ট দেখে ক্ষুব্ধ হয়েছে। তাই লাঠিসোঁটা নিয়ে গ্রামের দিকে আসছিলেন। ওই দিন পুলিশ তাদের নিবৃত্ত করে।

পুলিশ সুপার আরো বলেন, ১৭ মার্চ ৮টায় সংবাদ আসে আশপাশের গ্রামের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে গ্রামে আসছে। সাথে সাথেই আমরা ওসি, ইউএনও এবং উপজেলা চেয়ারম্যানসহ পুলিশ ফোর্সকে পাঠিয়ে দিই। তিনি বলেন,  পুলিশ গিয়ে কিছু মানুষ কে নিবৃত্ত করতে সক্ষম হয়। তবে গ্রামটি পূর্ব পশ্চিমে লম্বালম্বি হওয়ায় পূর্ব দিকে পুলিশ পৌঁছতে পৌঁছতেই হামলাকারীরা ৩০ মিনিট তাণ্ডব চালিয়ে যায়। আমি ও সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক সাড়ে ১১টায় ঘটনাস্তলে পৌঁছে সবার সঙ্গে কথা বলি। তারা আমাদের হামলার  চিত্র দেখান। আপনারা জানেন এই এলাকার মানুষ অধিকাংশই দরিদ্র ও কেটেখাওয়া মানুষ একমাত্র ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের বাড়ি এই গ্রামে ভাল আছে।

তিনি বলেন, এমন ঘৃণ্য কাজ যাতে আগামীতে কেউ না করতে পারে সেদিকে আমাদের নজর রয়েছে। জড়িত সবাইকেই আইনের আওতায় আনা হবে। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত। আমরা সেখান থেকেই তদন্ত করব। পাশাপাশি অন্যান্য বিষয়ও তদন্তে আসবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান,সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সহিদুর রহমান, ডিআইও-১ আনোয়ার হোসেন মৃধা প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ