ইউসেপ স্কুলে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১ ১১:০৩

ইউসেপ স্কুলে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

সুরমাভিউ:- ‘করোনাকালে নারী নেতৃত্ব, গড়বে নতুন সমতার বিশ্ব’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে ইউসেপ সিলেট রিজিয়ন তার সাধারণ বিদ্যালয় ও কারিগরি বিদ্যালয়গুলোতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস-২০২১ বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হয়েছে। নারী দিবস উপলক্ষ্যে গত সোমবার দুপুরে কিক ইউসেপ সোলায়মান চৌধুরী বালুচর স্কুলে একটি বিশেষ অনুষ্ঠান ‘নারী মেলা’র আয়োজন করা হয়। যেখানে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার সফল নারী ব্যক্তিত্ব অতিথি হিসেবে অংশ নেন।

জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে শুরু হওয়া উক্ত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক শামীমা চৌধুরী বলেন, তিনি ইউসেপের মত এমন একটি প্রতিষ্ঠানের অনুষ্ঠানে আসতে পেরে খুবই আনন্দিত ও গর্ববোধ করছেন। ইউসেপ যেভাবে সুবিধাবঞ্চিতদের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করছে সেটা অব্যাহত রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, এই ছোট্ট ছোট্ট সোনামনিরা একদিন বাংলাদেশের গর্ব হয়ে আমাদের সামনে তাদের উপস্থিতি জানান দিবে। তিনি একজন ইউসেপ শিক্ষার্থীর বাৎসরিক খরচ বহনেরও ইচ্ছা পোষণ করেন।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগীয় তথ্য অফিসের পরিচালক (উপসচিব) জুলিয়া যেসমিন মিলি। তিনি বলেন, মানুষ তার স্বপ্নের চেয়েও বড়। তিনি ইউসেপ শিক্ষার্থীদের মনযোগ দিয়ে পড়ালেখা ও প্রশিক্ষণ নেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, যদি তোমরা প্রশিক্ষণ নিয়ে কর্মক্ষম হও তাহলে তোমাদের বাবা-মাকে আর হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করতে হবে না।

বিশেষ অতিথি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পলিটিক্যাল স্টাডিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. জায়েদা শারমিন বলেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই নারীরা ঘরের কাজ করলেও সেটার কোনো মূল্যায়নই করা হয়না। এটা যদি সঠিকভাবে মূল্যায়ন করা হতো তবে আমি নিশ্চিত এটা অন্তত প্রমাণিত হত যে নারীরা পুরুষের চেয়ে কোনো অংশেই কম কাজ করেন না। তিনি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সিলেট এর ইংরেজি বিভাগে ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় তৃতীয় স্থান লাভ করা ইউসেপ শিক্ষার্থী ঝর্ণা আক্তারের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্ভব সকল প্রকার সহায়তা প্রদানের জন্য অনুষ্ঠানে উপস্থিত ঝর্ণা কে আশ্বস্ত করেন।

ইউসেপ সিলেট অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মো. আনোয়ারুল ইসলাম ইউসেপের ইতিহাস ও এর কার্যক্রম উপস্থাপন করে সরকারি-বেসরকারি দাতা ও সমাজের বিত্তবানদেরকে ইউসেপ শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য উদাত্ত আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় বেসরকারী সংস্থা ইউসেপ ১৯৭২ সাল থেকে বাংলাদেশের সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও যুবাদের সাধারণ শিক্ষা, কারিগরি প্রশিক্ষণ ও শোভন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে আসছে। সংস্থাটি বর্তমানে বাংলাদেশের ৮টি জেলায় ৩২টি সাধারণ ও ১০টি কারিগরি বিদ্যালয়ের মাধ্যমে বছরে প্রায় ৩৫ হাজার শিশু ও যুবাদের তার সেবার আওতায় আনতে সক্ষম হচ্ছে।

ইউসেপ বাংলাদেশ সিলেট অঞ্চলে ২০০৮ সাল থেকে তার কার্যক্রম শুরু করেছে। কিক ইউসেপ সোলায়মান চৌধুরী বালুচর স্কুল ও ইউসেপ ঘাসিটুলা স্কুল দুটিতে বর্তমানে প্রায় ১২০০ স্বল্প সুবিধাভোগী শিশুরা সাধারণ শিক্ষার সুযোগ লাভ করছে। ইউসেপ হাফিজ মজুমদার টেকনিক্যাল স্কুল থেকে বছরে প্রায় ২০০০ স্বল্প শিক্ষিত যুবা বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেদের কর্মক্ষেত্রে নিয়োজিত করতে সক্ষম হচ্ছে। কারিগরি স্কুলের বর্তমান ট্রেডগুলো হল- অটোমোটিভ মেকানিক্স, ওয়েল্ডিং, মেশিন শপ প্র্যাকটিস, ইলেকট্রিক্যাল ইন্সটলেশন এন্ড মেইনটেন্যান্স, টেইলরিং এন্ড ড্রেস মেকিং, সুইং মেশিন অপারেশন, এবং জেনারেল ফিনিশিং অপারেশন। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ২০২০ সনের এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় ইউসেপ হাফিজ মজুমদার টেকনিক্যাল স্কুল অংশ নিয়ে বোর্ডে র্শীর্ষস্থান লাভ করেছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে শাহপরান থানার সাব-ইন্সপেক্টর অঞ্জন সিনহা, এটিএন বাংলার বিভাগীয় রিপোর্টার শেখ মুজিবুর রহমান জকন, কিক ইউসেপ সোলায়মান চৌধুরী বালুচর স্কুলের প্রধান শিক্ষক জনাব এস এম ওমর ফারুক, ইউসেপ সিলেট রিজিয়নের রিজিওনাল ম্যানেজমেন্টের সদস্যবৃন্দসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। ইউসেপ শিক্ষার্থীরা অনুষ্ঠানে সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশন করে উপস্থিত দর্শক শ্রোতাদের অকুন্ঠ প্রশংসা ও ভালবাসা লাভ করে। বিজ্ঞপ্তি

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ