৭ মার্চের ভাষণে ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের রূপরেখা তুলে ধরেছিলেন বঙ্গবন্ধু – এড. লুৎফুর রহমান

প্রকাশিত:রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১ ০৩:০৩

৭ মার্চের ভাষণে ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের রূপরেখা তুলে ধরেছিলেন বঙ্গবন্ধু – এড. লুৎফুর রহমান

সুরমাভিউ:- সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. লুৎফুর  রহমান বলেন,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণকে পৃথিবীর অন্যতম শ্রষ্ট ভাষণ।এই ভাষণ আজও স্বাধীনতাকামী মানুষের কাছে অনুপ্রেরণা হয়ে আছে।

তিনি  বলেন, ‘৭ মার্চের বক্তব্যের প্রতিটি শব্দ, প্রতিটি বাক্য আমাদের বারবার অনুপ্রেরণা জাগিয়ে তোলে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের বক্তব্যের আবেদন অপরিসীম। এ বক্তব্য বিশ্বব্যাপী স্বাধীনতা অনুরাগী মানুষের অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান বলেন , ‘যারা ইতিমধ্যেই স্বাধীনতা অর্জন করেছে, তারাও এই ভাষণ থেকে দেশাত্মবোধে, রাজনৈতিকভাবে আদর্শবান হয়ে ওঠায় ও দেশের জন্য সর্বোচ্চ আত্মত্যাগের অনুপ্রেরণা পেতে পারে। তিনি  আরো বলেন, ‘১৯৭১ সালের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ নিছক বক্তব্য ছিল না। এই ভাষণের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু গেরিলাযুদ্ধের দিকনির্দেশনা ও ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের রূপরেখা তুলে ধরেছিলেন।

বঙ্গবন্ধু নিজের মতো করেই এই বক্তব্য দিয়েছিলেন। তাঁর হাতে কোনো নোট ছিল না। তিনি চোখ থেকে চশমা খুলে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত বহুসংখ্যক মানুষ যারা তাঁর বক্তব্য শুনতে এসেছিল তাদের সামনে দাঁড়িয়ে তাঁর বক্তব্য দেওয়া শুরু করেছিলেন।’

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ: শাশ্বত বাঙালীর লড়াইয়ের শক্তি”  শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড.নাসির উদ্দিন খানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান  চৌধুরী, আশফাক আহমদ, এডভোকেট শাহ ফরিদ আহমদ,এডভোকেট মো: নিজাম উদ্দিন, অধ্যক্ষ মো: সুজাত আলী রফিক, মুক্তিযোদ্ধা সা’দ উদ্দিন আহমদ,এডভোকেট শাহ মো: মোসাহিদ আলী,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন ইসলাম কামাল, মোহাম্মদ আলী দুলাল, কবির উদ্দিন আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মাহফুজুর রহমান,এডভোকেট রনজিত সরকার, উপদেষ্টা খোকন কুমার দত্ত, আইন সম্পাদক এডভোকেট আজমল আলী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মোহাম্মদ মবশ্বির আলী ,  ত্রান ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সৈয়দ এপতার হোসেন পিয়ার, দপ্তর সম্পাদক আখতারুজ্জামান চৌধুরী জগলু, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাজী রইছ আলী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এডভোকেট মোহাম্মদ আব্বাছ উদ্দিন, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ পলাশ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট ছালেহ আহমদ হিরা, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক বেগম সামসুন্নাহার মিনু, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা কবির উদ্দিন, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এমাদ উদ্দিন মানিক, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বুরহান উদ্দিন আহমদ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সাইফুর রহমান খোকন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শামসুল আলম সেলিম, স্বাস্থ্য সম্পাদক ডাক্তার মোহাম্মদ শাকির আহমেদ (শাহীন),উপদপ্তর সম্পাদক মো: মজির উদ্দিন, উপ প্রচার সম্পাদক মতিউর রহমান মতি, কোষাধ্যক্ষ শমসের জামাল।
কার্যকরি কমিটির সদস্য মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন চেয়ারম্যান,আখলাকুর রহমান চৌধুরী সেলিম, সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, হাবিবুর রহমান হাবিব, আব্দাল মিয়া, এডভোকেট বদরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, শহিদুর রহমান শাহিন,এডভোকেট  নূরে আলম সিরাজী,মোঃ আব্দুল বারী, আমাতোজ জোহরা রওশন জেবিন,মো: জাকির হোসেন,এডভোকেট আফসর আহমদ, এডভোকেট ফখরুল ইসলাম, এডভোকেট মনসুর রশিদ, জাহাঙ্গীর আলম, শাহিদুর রহমান চৌধুরী জাবেদ, ডা: নাজরা আহমদ চৌধুরী, সিলেট জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি এজাজুল হক এজাজ,সাধারণ সম্পাদক শামীম রশীদ চৌধুরী, সিলেট জেলা যুবলীগের সভাপতি শামীম আহমদ ভিপি, সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ, সিলেট জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সালমা বাছিত, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সালমা বাছিত,সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আফসর আজিজ,সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন আহমদ কয়েছ,সিলেট জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি আলমগীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সুজন দেবনাথ, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ।

এর আগে জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ জেলা পরিষদে স্থাপিত জাতির জনক বঙ্গ বন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

এদিকে, আগামী ১৭ মার্চ থেকে টানা ২৬ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করবে সিলেট জেলা আওয়ামীলীগ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ