সিলেট ওসমানী হাসপাতাল: টাকা না দিলে সিট পাওয়া যায় না, রোগী শুয়ে নিচে

প্রকাশিত:শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১ ০৬:০৩

সিলেট ওসমানী হাসপাতাল: টাকা না দিলে সিট পাওয়া যায় না, রোগী শুয়ে নিচে

সুরমাভিউ:-  সিলেট বিভাগে চিকিৎসাক্ষেত্রে একমাত্র ভরসার নাম সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। পুরো দেশজুড়ে সিলেট অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী এই চিকিৎসা কেন্দ্রটির সুনাম ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। তবে এখন পুরো ভিন্ন পথে চলছে দেশের অন্যতম ও সিলেট বিভাগের সর্বসাধারণের একমাত্র ভরসার চিকিৎসাকেন্দ্র সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

সর্বস্তরের নাগরিকদের প্রধান চিকিৎসা কেন্দ্র ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসার নামে চলছে ব্যবসা। অসহায় ও সর্বসাধারণ রোগীদের সরকারিভাবে চিকিৎসাসেবাসহ ফ্রি ওষুধ পাওয়ার কথা থাকলেও বর্তমানে তা পাচ্ছেন না। বিভিন্ন ওয়ার্ড ও কেবিনে সিট খালি থাকার পরও রোগীদের নিচে রাখা হচ্ছে। টাকা না দিলে সিট দেওয়া হয় না।সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় অনেক রোগী অভিযোগ করছেন কয়েকদিন যাবৎ হাসপাতালে ভর্তি তারা , কিন্তু সিট খালী থাকার পরও তাদের সিট দেওয়া হয়না। দালালরা টাকা চায়।

রোগীদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ওসমানী হাসপাতালের ল্যাব ব্যবহার করা হয় না। রোগীদের বাধ্য হয়ে বাহির থেকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আনতে হয়। ল্যাবে চরম অব্যবস্থাপনা, টেস্টের জন্য দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের উদাসীনতা ও অবহেলা চরম আকার ধারণ করেছে।

অপ্রয়োজনীয়ভাবে ডেলিভারিসহ বিভিন্ন রোগীদের রক্ত সংগ্রহের চাপ সৃষ্টি করা হয়। পাশাপাশি গেটে আনসার ও দারোয়ানদের রমরমা চাঁদা আদায় বাণিজ্য, রোগীদের সরকারি ওষুধ না দিয়ে বাহির থেকে ক্রয় করতে বাধ্য করা, যথাসময়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক না পাওয়ায় দূর-দূরান্ত থেকে আগত রোগীদের মারাত্মক ভোগান্তিতে পড়তে হয়। তদন্ত সাপেক্ষে দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়া যাবে।

এ ব্যাপারে সুষ্ঠু তদন্ত করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গুটিকয়েক কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানান সাধারন নাগরিক।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ