মাক্সের টাকা ফেরত না পেয়ে দোকানে হামলা আহত ২

প্রকাশিত:শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১ ০৩:০৩

মাক্সের টাকা ফেরত না পেয়ে দোকানে হামলা আহত ২
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:-  সুনামগঞ্জের হোসেন বখত চত্বরে নিধীমণি ষ্টোরে মাক্স কেনা কে কেন্দ্র করে দোকানে হামলা চালিয়ে মালামাল তছনছ করে দোকানের ক্যাশবাক্সে থাকা ২০,০০০ টাকা নেওয়ায় আকাশ নামের এক জন কে অভিযুক্ত করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের। বিগত মঙ্গলবার বিকালে এই হামলার ঘটনাটি ঘটে।
বাঁধনপাড়া এলাকার মৃত শহিদ মিয়ার ছেলে  আকাশ (২০) মঙ্গলবার বিকালে সুরমা ইউনিয়নের পুর্ব ইব্রাহিমপুর গ্রামের মৃত আলী হোসেনের ছেলের শহরের  হোসেন বখত চত্বরের নিধীমণি ষ্টোরে এসে মাক্সের ২০ টাকা ফেরৎ দাবি করে, টাকা দেওয়ার কারন জিজ্ঞাসা করলে আকাশ অসৌজন্য মুলক আচরন শুরে করে এক পর্যায়ে দোকানের মালামাল ফেলে তছনছ করে ফেলে দোকান মালিক হাবিবের সাথে হাতাহাতি শুরু করে একফাঁকে  দোকানের ক্যাশবাক্সে থাকা ২০.০০০ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় বলে অভিযোগ সুত্রে জানাযায়।
বিষয় টি জানতে প্রতিবেদক সরজমিনে গেলে বেরিয়ে আসে খবরের পিছনের খবর আকাশ কিছুদিন পুর্বে নিধীমণি ষ্টোর হতে একটি মাক্স কেনে, কিন্ত মাক্সটি ব্যাবহৃত বলে আকাশ দোকানের মালিক হাবিবের সাথে তর্কাতর্কিতে জরিয়ে পরে তার রেশধরে ঘটনার দিন হোসেন বখত চত্বরের নিধীমণি ষ্টোরে এসে টাকা দাবি করে আকাশ, দোকানদার হাবিব টাকা দিতে অস্বিকার করলে দোকানে হামলা চালায় আকাশ এ সময় দু’জনের মধ্যে হাতাহাতি মারামারি শুরু হয় এতে দু’জনেই আহত হয়।
একটি নির্ভরশীল সুত্রে জানাযায়  আকাশের বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় মারামারি সহ ভিবিন্ন অপরাধে একাধিক মামলা আছে।
এ দিকে হাসপাতার সুত্রে জানাযায় মঙ্গলবার আকাশ সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গেলে ডাক্তার তাকে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্ত হাসপাতালে গিয়ে আকাশ কে পাওয়া যায়নি। সদর হাসপাতালের ইমারর্জেন্সীর কর্তব্যরত ডাক্তার জানান চিকিৎসা নিতে আসা আকাশ নামের একজন কে হাসপাতালে ভর্তির জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল কিন্ত তিনি ভর্তির কাগজ নিয়ে ভর্তি না হলে আমাদের কি করার আছে।
এ বিষয়ে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সহিদুর রহমান জানান হোসেন বখ্ত চত্বরে নিধীমণি’ ষ্টোরে মারামারিকে কেন্দ্রকরে দু পক্ষেই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন পুলিশ এদের দু’জনের অভিযোগের বিষয়টি নজর রাকছে খুভ দ্রুত সময়ের মধ্য তদন্ত করে দোষি ব্যাক্তির বিরোদ্ধে  আইনগত ব্যাবস্তা নেওয়া হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ