কোম্পানীগঞ্জে হৃদয় হত্যার মূল আসামী বিবাড়ীয়া থেকে গ্রেফতার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রু ২০২১ ১২:০২

কোম্পানীগঞ্জে হৃদয় হত্যার মূল আসামী বিবাড়ীয়া থেকে গ্রেফতার

সুরমাভিউ:-  সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে হৃদয় মিয়া (১৫) হত্যার ঘটনার মূল আসামী সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। গত ১৭ ফেব্রুয়ারি মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই হিরক সিংহ অভিযান চালিয়ে বিবাড়ীয়া জেলার নবীনগর থানার বড়াইল ইউনিয়নের বড়াইল গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেন।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিলেট জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মো. লুৎফুর রহমান।

তিনি জানান, সাদ্দামকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি আরো দুই আসামীর সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করেন। পুলিশ তাদেরও গ্রেপ্তার করে। তারা হলেন, কোম্পানীগঞ্জের নয়াপাঙ্গের গ্রামের আব্দুস ছত্তারের পুত্র মিজান আহমদ ও টুকেরগাঁওয়ের বাছির মিয়ার পুত্র সুমন মিয়া। তাদেরকে আজ বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করা হয়েছে।

জানা যায়, গত ৩১ জানুয়ারি কোম্পানীগঞ্জ থানাধীন নয়াগাঙ্গেরপাড় নামক স্থানের উপর দিয়ে প্রবাহিত ধলাই নদীর তীরে অজ্ঞাতনামা কিশােরের লাশ পাওয়া যায়। কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ লাশটি পেয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি দ্রুততম সময়ে লাশের পরিচয় শনাক্তের জন্য বিভিন্ন এলাকার মসজিদে মাইকিং করে।

এরই ভিত্তিতে জানা যায়- অজ্ঞাতনামা লাশটি কোম্পানীগঞ্জ থানাধীন পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়নের ০৩নং ওয়ার্ডের সদস্য আউওয়াল মিয়ার পুত্র হৃদয় মিয়া (১৫)। সে গত ২৭ জানুয়ারি হতে নিখোঁজ ছিল। লাশের ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের নিকট হস্তান্তরের পর সিলেট জেলার পুলিশ সুপার মােহাম্মদ ফরিদ উদ্দিনের পিপিএম এর সার্বিক দিক-নির্দেশনায় থানা পুলিশের সদস্যরা কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম নজরুলের নেতৃত্বে একাধিক দলে বিভক্ত হয়ে হত্যায় জড়িত আসামী গ্রেফতারে অভিযান পরিচালনা করেন।

এক পর্যায়ে ভিকটিম কিশাের হৃদয়ের বন্ধু নয়ন ও রুহুল আমিনকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তারা জানায় তাদের অপর বন্ধু সফরের সাথে হৃদয় ৫-৬ দিন থেকে ঘােরাফেরা করছি।

গত ১ ফেব্রুয়ারি থানা পুলিশ নিহত হৃদয়ের আরেক বন্ধু বন্ধু সাদ্দাম হােসেনের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ করে তেলিখাল গ্রামে গিয়ে তাকে না পেয়ে তথ্য প্রযুক্তি সহায়তা নেয় । থানা পুলিশ গােপন সূত্রে জানতে পারে- ৩১ জানুয়ারি হৃদয়ের লাশ উদ্ধারের পর হতে সাদ্দাম হােসেন গাঁ ঢাকা দেয়।

তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় নিয়ে তাকে ১৭ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলার নবীনগর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে সিলেট জেলার পুলিশ সুপার বলেন, অপরাধের সাথে জড়িত আসামীদের গ্রেফতারে সিলেট জেলা পুলিশ বদ্ধ পরিকর।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ