ছাতকে এক মামলাবাজ চক্রের খপ্পরে পড়ে প্রবাসী পরিবার হয়রানির শিকার

প্রকাশিত:বুধবার, ১৭ ফেব্রু ২০২১ ০৮:০২

ছাতকে এক মামলাবাজ চক্রের খপ্পরে পড়ে প্রবাসী পরিবার হয়রানির শিকার

ছাতক প্রতিনিধি:-  ছাতকে এক মামলাবাজ চক্রের খপ্পরে পড়ে প্রতিনিয়ত হয়রানির শিকার হচ্ছেন প্রবাসী পরিবার ছাতকে এক মামলাবাজ চক্রের খপ্পরে পড়ে প্রতিনিয়ত হয়রানির শিকার হচ্ছেন প্রবাসী পরিবার।এই মামলাবাজ চক্রটি সুযোগ বুঝে প্রবাসী পরিবায়ে লোকজনকে এলাকা ছাড়া করে তাদের বসতভিটেও কেড়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।বদরুল আলম  নামের এক মামলাবাজ চক্রের খপ্পরে পড়ে হয়রানির শিকার হয়েছেন উপজেলার লন্ডন প্রবাসী জগনśাথপুর উপজেলার গোয়ালকুড়ি গ্রামে মৃত সানুর মিয়ার পুত্র কালারুকা ইউপির নুরুল্লাহ পুর গ্রামে মৃত হাজি কমর উদ্দিনের পুত্র এহিয়া ও,মুক্তিগাও গ্রামে  সাবেক ইউপি মেম্বার মৃত নুরুল হকের পুত্র সংবাদকমী আরিফুল রহমান মানিকসহ পরিবার।

গোবিন্দগঞ্জ–ছাতক সড়কের তকিপুর গ্রামে সামনে গত ৭ ফেরুয়ারি বিকালে ছিনতাইয়ের কোন ঘটনা ঘটেনি বলে এলাকাবাসি অভিযোগ করেছেন।এক মিথ্যা সাজানো নাটকের ঘটনায় জেলাজুড়েই ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এই নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যও সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায় গত ৭ ফেরুয়ারি বিকালে গোবিন্দগঞ্জ –-ছাতক সড়কের তকিপুর গ্রামে ব্রীজে দক্ষিনের পাশে লাইটেস গাড়ি আটকিয়ে প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় সাজিয়ে লন্ডন প্রবাসি বদর উদ্দিন,এহিয়া ও মানিকসহ ৩ ব্যক্তি বিরুদ্ধে গত ৯ ফ্রেরুয়ারি বদরুল আলম বাদী হয়ে সুনামগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যজিস্ষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। যার নং ৪৫(ছাতক) এ নালিশের বিয়ষে তদন্তপুরক প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য ওসি ছাতক থানাকে নিদের্শ দেয়া গেল।

ঘটনাস্থলে গিয়ে ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসি বদর উদ্দিনের মা মৃত জাহানারা বেগম ও বদরুল আলমের সাথে ছাতক পৌর শহরের বাসার জায়গার জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ বিরোধের জেরে বদরুল একজন প্রবাসিকে আসামী করে টাকা ছিনতাইয়ের নাটক সাজানো হয়েছে বলে এলাকাবাসি অভিযোগ করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা ও প্রবাসি পবিরারে পক্ষে এহিয়া জানান,তার ছোট বোনের জামাই লন্ডন প্রবাসি বদর উদ্দিনের মা মৃত জাহানারা বেগমসঙ্গে পৌর শহরের বৌলা গ্রামে মৃত ইলাছ আলীর পুত্র বদরুল আলমের লন্ডন প্রবাসি মৃত জাহানারা বেগমের দোকান ঘরসহ বসতভিটার ফিলিĄ স্টাইলে রাতের আধারে দেশী-অস্ত্র নিয়ে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে জোরপুবক মারপিট করে  প্রবাসির কষ্টে বাসাটি দখল করে নেন।

এঘটনায় বদরুল আলমকে প্রধান আসামী করে থানায় তার নামে মারপিট লুটপাটসহ পৃথক পৃথক মামলা দায়ের করেন এহিয়া।এ মামলায় ভুমিখোকো বদরুল দীর্ঘদিন জেল-হাজতে ছিলো। উচ্চ আদালতে থেকে জামিনে বের হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলাগুলে প্রত্যাহার করতে বাদীকে নানা টালবাহানা শুরু করে আসছে।

এঘটনায় লন্ডন প্রবাসী বদর উদ্দিন এহিয়া মানিকসহ তাদের পরিবারকে আসামী করা হলেও তারা ঘটনা সময়ে তকিপুর এলাকা ও ছিলো না বলে অভিযোগ করেন।এ ঘটনায় আদালতে মামলা হওয়ার পর পুলিশ প্রশাসন সহ সকলকে অবগত করেছি। আদালতে ঘটনাস্থল দিয়েছে গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগ্ওা ইউপির চেয়ারম্যান ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়ি সামনে,এখানে ২০-২৫জন শ্রমিক ব্রীজ নিমানে কাজ চলছে। তারা সবাই বলছেন ৭ ফেফেরুয়ারি সকাল থেকে সন্ধ্যা পযন্ত তারা মাঠে কাজ করছেন।  কিন্তু ছিনতাইয়ের কোন ঘটনা এখানে ঘটেনি বলে দাবি করেন। এটি একটি মিথ্যা বানোয়াট মামলা দিয়ে সে তাদের হয়রানী করছেন।

এ ব্যাপারে আরিফুর রহমান মানিক জানান একজন এলাকায় ভূমিদস্যূ হিসেবে এলাকায় পরিচিত। সে একজন মামলাবাজ ব্যক্তি বদরুল। সে তাদেরকে মামলা দিয়ে অতিষ্ঠ করে তোলা হচ্ছে। এলাকার সাধারণ মানুষদের সে মিথ্যা মামলার ভয় দেখিয়ে ভূমি দখলও নিয়েছে। আমরা তার অতিষ্ঠ জুলুম থেকে মুক্তি চাই। লন্ডন প্রাবাসি বদর উদ্দিন জানান বদরুল একজন মামলাবাজ তার বিরুদ্ধে সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের  প্রতি আকুতি করেছেন।
এব্যাপারে মামলার বাদী বদরুল আলমের মোবাইল নম্বার বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া গেল না।

এব্যাপারে থানার ওসি শেখ নাজিম উদ্দিন জানান,তাদের দু’পক্ষের জমি নিয়ে বিরোধ আছে। সে বিরোধের জেরে এ গুলো করছে। কিন্তু বদরুল নাকি আদালতে গিয়ে এক ছিনতাইয়ের মামলা করেছে। তবে মামলাটি আসার পর সত্য মিথ্যা সাপেক্ষে তদন্তপুবক ব্যবস্থা নেবেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ