আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষায় দ্বিতীয় সুযোগে অনুষ্ঠিত হলো জেলা অবহিতকরণ কর্মশালা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রু ২০২১ ০৯:০২

আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষায় দ্বিতীয় সুযোগে অনুষ্ঠিত হলো জেলা অবহিতকরণ কর্মশালা

সুরমাভিউ:-  উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (পিইডিপি-৪) সাব-কম্পোনেন্ট ২.৫ আউট অব স্কুল চিলড্রেন প্রোগ্রাম এর আওতায় সিলেট জেলার ৯টি উপজেলা ও সিটি কর্পোরেশনে ৭৫০টি উপানুষ্ঠাকি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাধ্যমে ২৬,১০০ জন (ঝরে পড়া বা বিদ্যালয়ে ভর্তি না হওয়া) ৮-১৪ বছর বয়সী শিশুদের দ্বিতীয় বার প্রাথমিক শিক্ষার সুযোগ ও আনুষ্ঠানিক শিক্ষার মূলধারায় ফিরে আসতে পারে তার জন্য এক সুবর্ণ সুযোগ তৈরি হয়েছে।

এ উপলক্ষে আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম বিষয়ক জেলা পর্যায়ের অবহিতকরণ কর্মশালা উপানুষ্ঠাানিক শিক্ষা ব্যুরো, সিলেট এর আয়োজনে ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ তারিখে সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসক সিলেটের সম্মলেন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আ.ন.ম. বদরুদ্দোজা এর সভাপতিত্বে অবহিতকরণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আউট অব চিলড্রন প্রোগ্রামের বিশেষজ্ঞ রওনক জাহান। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো’র সহকারী পরিচালক মোঃ নজরুল ইসলাম ভুইয়া।

কর্মশালায় জানানো হয় এই কর্মসূচির আওতায় সারা দেশে ৬৪ জেলায় ১০ লক্ষ শিশুকে প্রাথমিক শিক্ষার দ্বিতীয় সুযোগ তৈরি করা হয়েছে। এর অংশ হিসেবে সিলেট জেলায় ২৬ হাজার ১০০ শিশুকে নিয়ে আউট অব চিলড্রেন এডুকেশন কর্মসূচি লিড এনজিও আরডিআরএস বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করবে এবং উন্নয়ন পরিষদ ও এডিএস বাস্তবায়নে সহযোগি সংস্থা হিসাবে কাজ করবে। এই প্রকল্পের আওতায় উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় মাসে ৩০০ টাকা করে উপজেলা পর্যায়ে ১২০ টাকা করে উপবৃত্তিসহ, স্কুল ড্রেস, ব্যাগ ও যাবতীয় শিক্ষা উপকরণ বিনামূল্যে পাবে। শিক্ষার গুণগত মান সম্মুন্নত রেখে পাঠদানের জন্য শিক্ষকগণের জন্য মৌলিক, বিষয়ভিত্তিক, একাডেমিক ও রিফ্রেশার্সাস প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এ কর্মসূচিতে শিক্ষকগণ মাসে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ২সিফট স্কুল পরিচালনা করে ১০ হাজার টাকা বেতন এবং গ্রাম পর্যায়ে এক সিফট স্কুল পরিচালনা করে ৫ হাজার টাকা করে বেতন পাবে।
প্রবন্ধের উপর উন্মক্ত আলোচনায় অংশগ্রহন করেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ আবুল ফতেহ ফাত্তাহ। তিনি বলেন বর্তমান সরকার শিক্ষার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিয়ে আনুষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার মাধ্যমে ১০ লক্ষ শিক্ষার্থীকে প্রাথমিক শিক্ষার আওতায় আনার পরিকল্পনা করছে। যা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর মাধ্যমে ৬৪ জেলায় কার্যক্রম বাস্তবায়িত হচ্ছে। এটি একটি সাহসী ও যুগপোযোগী উদ্যোগ তাই সরকারের এই মহৎ উদ্যোগ বাস্তবায়নের জন্য সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।
কর্মশালায় আলোচক হিসেবে বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট আফতাব চৌধুরী বলেন, এরকম কর্মসূচির মাধ্যমে সমাজে টেকসই উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। তাই এই প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন করার জন্য সকলের সার্বিক সহায়তা কামনা করেন।

প্রধান অতিথি সিলেট জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম বলেন,সরকারের এই উদ্যোগ হলো জাতিকে শতভাগ শিক্ষার আওতায় নিয়ে আসা। তিনি বলেন, যে সকল কারণে শিশুরা স্কুল থেকে ঝরে পড়েছে তা বের করে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে এজন্য আজকে যারা এ কর্মশালায় উপস্থিত আছেন তাদের সুচিন্তিত মতামত আশা করেন। আর আউট অব স্কুল চিলড্রেন কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বায়েজীদ খান বলেন, শিক্ষা ক্ষেত্রে সরকারের অর্জন অতুলনীয়। তাই সরকার শিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিয়ে প্রাথমিক শিক্ষার পাশাপাশি উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো’র মাধ্যমে আউট অব স্কুল চিলড্রেন কর্মসুচি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। তিনি আরও বলেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগণ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে ফলে এই প্রোগ্রামের উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রকৃত ঝরে পড়া ও স্কুলে পরে না এমন শিশুরাই সুযোগ পাবে।
বিশেষ অতিথি রওনক জাহান, বিশেষজ্ঞ, আউট অব চিলড্রন প্রোগ্রাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বলেন, শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড এটি এখন সকলের জানা আছে। তিনি প্রাইমারী স্কুল এন্যুয়াল সেনশাস রিপোর্ট অনুয়ারি প্রতি বছর প্রায় ১৮% শিক্ষার্থী প্রাথমিক শিক্ষা থেকে ঝরে পড়ছে । তাই এই সব শিক্ষার্থীর জন্য আউট অব স্কুল চিলড্রেন কর্মসুচি শিক্ষা লাভের জন্য বর্তমান সরকার দ্বিতীয় সুযোগ তৈরি করেছে। তিনি এইকর্মসুচি বাস্তবায়নে সকলের সহায়তা কামনা করেন।

সভাপতির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আ.ন.ম. বদরুদ্দোজা এই কর্মসূচির মাধ্যমে যেহেতু স্কুল ৮-১৪ বছর বয়সী ঝরেপড়া ও স্কুলে কখনও ভর্তি হয়নি এমন শিশু শেখার সুযোগ পাবে সেহেতু আনুষ্ঠানিক শিক্ষার শিশুরা যাতে অর্ন্তুভূক্ত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার পরামর্শ দেন এবং এই কর্মসুচি বাস্তবায়নে প্রশাসনের পক্ষে সার্বিকভাবে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

এছাড়াও কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন উপানুষ্ঠানিক শিক্ষাব্যুরো’র প্রধান কার্যলয়ের ম্যানেজার, সোস্যাল মবিলাইজেশন মির্জা কামরুন্নাহার, সিলেট জেলা প্রেসক্লাব সভাপতি আল আল আজাদ, বাস্তবায়ন সহযোগী সংস্থা আরডিআরএস বাংলাদেশ এর আউট অব স্কুল চিলড্রেন কর্মসূচির প্রোগ্রাম হেড মো: আব্দুল মান্নœান, এডিএস এর নির্বাহী পরিচালক জনাব শিহাব আহমদ শিহাব এবং বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি। বিজ্ঞপ্তি

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ