জৈন্তাপুরে ঘুড়ি উৎসব করল রঙতুলি আর্ট

প্রকাশিত:শুক্রবার, ১২ ফেব্রু ২০২১ ০৭:০২

জৈন্তাপুরে ঘুড়ি উৎসব করল রঙতুলি আর্ট

সুরমাভিউ:-  জৈন্তাপুর উপজেলার সৃজনশীল শিল্প ও বিজ্ঞাপনী সংস্থা রঙতুলি আর্টের উদ্যোগে আবহমান বাংলার চিরায়ত ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ ঘুড়ি উৎসব সম্পন্ন হয়েছে।

উপজেলা সদরের ইমরান আহমদ মহিলা সরকারী কলেজ সংলগ্ন মাঠে এ উৎসবে বিপুল সংখ্যক প্রতিযোগী অংশ নেয়। শিশু, ছাত্র, যুবক ও বয়স্ক জনগণও এতে অংশ নেন।

“রঙিন ঘুড়ির আহবানে জেগে উঠুক সম্প্রীতি,বেঁচে থাকুক বাংলার শুদ্ধ সংস্কৃতি” শ্লোগান কে সামনে রেখে পড়ন্ত বিকেলে অনুষ্ঠিত আনন্দঘন ঘুড়ি উৎসব আজ ১২ জানুয়ারি শুক্রবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়।

রঙতুলি আর্টের ব্যবস্থাপনায় ও প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার আলোকচিত্র সাংবাদিক হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে এবং শিক্ষক ও ক্রিকেটার সাব্বির আহমদের পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক গোলজার আহমদ হেলাল।

উৎসবের সমাপ্তি লগ্নে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আমিনা হেলালী টেকনিক্যাল স্কুলের প্রধান শিক্ষক প্রকৌশলী হেলাল আহমদ, নিজপাট ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তরুণ সমাজসেবক আবুল হাশিম, সাবেক ছাত্রনেতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এনামুল হক, জৈন্তাপুর ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল কাইয়ুম, সমাজসেবক ও মেম্বার পদপ্রার্থী জসীম উদ্দীন।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন যুবনেতা সেলিম আহমদ, প্রিন্টিং শপের স্বত্বাধিকারী জুবায়ের আহমেদ, সারণ মাহমুদ, জাবেদ আহমদ প্রমুখ।

প্রধান অতিথি বলেন, ঘুড়ি গ্রাম বাংলার প্রাচীন ঐতিহ্য। ইহা আমাদের লোকজ সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। কিন্তু এটি এখন বিলুপ্তপ্রায় ।

তিনি বলেন, আমাদের নতুন প্রজন্ম কে হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে হবে। আজকে ইন্টারনেট ভিত্তিক নেতিবাচক গেইমস এর প্রতি ছাত্র ও যুবকদের অতিমাত্রায় আসক্তি আমাদের জন্য অশনিসংকেত।

তিনি বলেন, নতুন প্রজন্ম কে সুস্থ ভাবে গড়ে তুলতে আবহমান বাংলার চিরায়ত ঐতিহ্য ও বিনোদনের কোন বিকল্প নেই।

তিনি রঙতুলি আর্টের এ মহতী উদ্যোগ কে সাধুবাদ জানান। এ উৎসব এ সমাজে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ