বাউরীটিলা দখলের চেষ্টা পুলিশের উপস্থিতিতে ঘর ভাংচুরের অভিযোগ ৪৫ পরিবারের মিথ্যা মামলা দায়ের, আটক ২

প্রকাশিত:বুধবার, ২০ জানু ২০২১ ০৯:০১

বাউরীটিলা দখলের চেষ্টা পুলিশের উপস্থিতিতে ঘর ভাংচুরের অভিযোগ ৪৫ পরিবারের মিথ্যা মামলা দায়ের, আটক ২

মোঃ রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধি:-  সিলেটের জৈন্তাপুরে ফের বাউরী টিলা দখলের চেষ্টায় লিপ্ত চা-বাগান কর্তৃপক্ষ। মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর অপচেষ্টায় ৪৫ পরিবারের উপর। মিথ্যা মামলায় আটক ২।

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার চারিকাটা ইউনিয়নের স্বাধীনতার পর হতে অদ্যাবদি পর্যন্ত বাউরীটিলা ভোগ দখল করে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছে ৪৫টি পরিবার। বিগত ২০১৮ সনে লাটিয়াল বাহিনী নিয়ে আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতিতে বাউরী টিলা দখলের চেষ্টা চালিয়ে টিলার ফসল, বৃক্ষরাজী, জারালেবু, সুপারী, আনারস, কলা, পেয়ারা, ঝাড়– (রেমা) বাগান, কৃষি ফসল হলুদ, আধা, শিম, বরবটি, কুমড়া, মিষ্টিকৃমড়া, দেশিও মরিচ, টমেটো, গোল আলু সহ বিভিন্ন ফসলের বাগান ধ্বংস করে, গাছ কর্তন করে এবং টিলার বসবাসরত ৪৫ পরিবারের ঘর-বাড়ী পুড়ে ছাই করা করে দখলের চেষ্টা করে চালায় লালাখাল চা-বাগান কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি গত ১৮ জানুয়ারী দুপুরে বিনা কারনে ফের বাগান কর্তৃপক্ষ আদালতের নিষেদাজ্ঞা অমান্য করে জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশের এস.আই শফিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে টিলার উপর নির্মিত ঘর ভাঙ্গার চেষ্টা করা হয়। এসময় নতুন ফের নির্মিত ঘরের কিছু অংশ ভাংচুর শুরু করলে দ্রুত বাউরী টিলার বাসিন্ধারা এগিয়ে আসলে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে পুলিশ ও বাগান কর্তৃপক্ষ। খরব পেয়ে সরেজমিনে বাউরীটিলা এলাকা ঘুরে দেখা যায় বাউরী টিলা দখলের চেষ্টার ও ভাংচুরে ঘটনার পর হতে ৪৫ পরিবারের প্রায় ২শতাধিক পুরুষ মহিলা বাউরী টিলা এলাকার ফসল শিম, বরবটি, লাউ, বেগুন, টমেটো, নাগা মরিচ, দেশি মরিচ, মিষ্টি কুমড়া রক্ষার জন্য দিন রাত দল বেঁধে পাহারা বসিয়ে এবং টিলা এলাকায় অবস্থান নিয়ে বাগান কর্তৃপক্ষকে প্রতিহত করতে দল বেঁধে পাহারা দিচ্ছেন।

এ বিষয়ে কথা হয় বাউরী টিলার বাসিন্ধা ফয়েজ আহমদ মঞ্জুর, আব্দুর রহমান বাবুল, ফরিদ উদ্দিন, হাজীর আলী, কবির আহমদ, আলা উদ্দিন, সুরমান আলী, এনামুল হক, জহির উদ্দিন, ফখরুল ইসলাম, ফরিদ আহমদ, সামসুল হক, হালিম, জামিল আহমদ, ফারুখ আহমদ, ফরিদ আহমদ, মন্তাজ আলী, মড়াই মিয়া, ফয়াজ আহমদ, আঃ ছালাম, খালিক, মোহাম্মদ আলী, গুলজার আহমদ, আব্দুছ ছালাম, হোসেন আহমদ, কাশিম আলী, শাহিন আহমদ, মাহফুজুর রহমান, মাহদিকুর রহমান, মাহমুদ আলী, আমির আলী সহ ৫০/৬০ জনের সাথে।

তারা বলেন সিলেট জেলার জৈন্তাপুর উপজেলার কামরাঙ্গীখেল দক্ষিণ মৌজার ১নং বিএস খতিয়ানের, ৫৪৫, ৫৪৪, ৫৪৬, ৫৪৭, ৫৫০, ৫২৮, ৫২৭ নং বিএস দাগে মোয়াজী ৫৪.৫৭ একর ভূমি স্বাধীনতার পূর্ববতী হতে বর্তমান পর্যন্ত ৩১টি বাড়ী ঘর বিদ্যমান আছে এবং এনিয়ে মাননীয় সহকারী জজ জৈন্তাপুর আদালত সিলেট-এ স্বত্ব মোকাদ্দমা নং- ৪৬/২০১৮ চলমান রয়েছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাগান কর্তৃপক্ষ ৫০নং খতিয়ানের ভূমিতে ইজারা নিয়ে আমাদের দখলীয় ১নং খতিয়ানের ভূমি দীর্ঘদিন দখলের চেষ্টা চালিয়ে আসছে।

২০১৮ সনে প্রশাসনের ছত্র-ছায়ায় লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে আমাদের অন্তত ২কোটি টাকার ক্ষতি সাধান করেছে মর্মে অভিযোগ করেন। সে সময় স্থানীয়, জাতীয়, ইলেক্সট্রনিক্স মিডিয়ায় সংবাদ পরিবেশন করা হয়। ঘটনার পুনরাবৃত্তি করেত তারা আবারও অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বাউরী টিলার দখল নিতে বাগান কর্তৃপক্ষ দখলকারীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে যার পরিপ্রেক্ষিতে জৈন্তাপুর মডেল থানার এস.আই শফিক ইটাখাল এলাকা হতে ২জনকে আটক করে জৈন্তাপুর থানায় নিয়ে আসে।

জৈন্তাপুর মডেল থানার এস.আই শফিক ২জন আটকের কথা স্বীকার করে প্রতিবেদককে জানান, বাগান কর্তৃপক্ষের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরেজমিন তদন্তে যাই। আমার সম্মুখে ভাংচুরের ঘটনা ঘটেনি। ১৯ জানুয়ারী বাগান কর্তৃপক্ষ মামলা দায়ের করেছে। মামলার প্রেক্ষিতে ইটাখাল এলাকা হতে অভিযান পরিচালনা করে তাদের ২জনকে আটক করি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ