সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৭তম সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার, ১৬ জানু ২০২১ ০৬:০১

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৭তম সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত

সুরমাভিউ:-  সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ সিন্ডিকেট কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৬ জানুয়ারি শনিবার সিন্ডিকেটের ৩৭তম সভাটি অনুষ্ঠিত হয় বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা দপ্তর। সিন্ডিকেট সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ মতিয়ার রহমান হাওলাদার। করোনা মহামারীর কারণে এবারের সিন্ডিকেট ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়।

রেজিস্ট্রার ও সিন্ডেকেটের সচিব মোঃ বদরুল ইসলাম এ সভার কার্যবিবরণী উপস্থাপন করেন।

সভায় সিন্ডিকেট সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুস শহীদ, সিলেট-৬ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ, কৃষি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মুহাম্মদ রাশেদ আল মামুন, বায়োটেকনোলজি ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মেহেদী হাসান খান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (অবসরপ্রাপ্ত) ড. অরুণা বিশ্বাস, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মোঃ নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ মাৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর ও চেয়ারপার্সন ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের পোল্ট্রি রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেইনিং সেন্টারের সাবেক পরিচালক প্রফেসর ড. পরিতোষ কুমার বিশ্বাস, সিলেট বিভাগের কমিশনার জনাব মোঃ মশিউর রহমান এনডিসি, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর ইমেরিটাস প্রফেসর ড. এম. এ. সাত্তার মন্ডল, পরিকল্পনা কমিশনের সিনিয়র সচিব প্রফেসর ড. শামসুল আলম, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিসম্পদ উৎপাদন ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ আবদুল বাসেত এবং উদ্যানতত্ত্ব বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ শহীদুল ইসলাম।

৩৭তম সিন্ডিকেট অধিবেশনের শুরুতেই মাইক্রোবায়োলজি ও ইমিউনোলজি বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ আবু বকর সিদ্দিক ও সুহাসিনী দাস হলের সহকারী রেজিস্ট্রার শারমীন রহমান তানিয়াসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মৃত্যুতে শোকপ্রস্তাব গৃহীত হয়।

এরপর বিস্তারিত আলোচনার মাধ্যমে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এরমধ্যে রয়েছে বিভিন্ন বিভাগ ও দপ্তরে শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের নিয়োগ ও পদোন্নয়ন। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা ও শিক্ষা সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য সিন্ডিকেটকে অবহিত করা হয়। এ বিষয়ে ভাইস চ্যান্সেলর জানান, কোভিড-১৯ পরিস্থিতির সময়ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অনুষদে অনলাইন ক্লাসে পাঠাদানের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

এমএস ও পিএইসচডি ফাইনালসহ ভেটেরিনারি, এনিম্যাল ও বায়োমেডিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদের ইন্টার্নশিপে ভাইবা ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কিছু ব্যাচের ফাইনাল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলেন জানান ভাইস চ্যান্সেলর। এছাড়া সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিরবিচ্ছিন্নভাবে গবেষণা কার্যক্রমও চলেছে। ২০১৯ সালেই পৃথিবীর অন্যতম বড় ও খ্যাতিমান ঝপড়ঢ়ঁং রহফবীবফ লড়ঁৎহধষং এ সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৭টি গবেষণা প্রকাশনা রয়েছে। ২০২০ সালে এটি বেড়ে প্রকাশনার সংখ্য ৯৮ এ এসে দাঁড়িয়েছে।

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্স সিস্টেম (সাউরেস) এখন পর্যন্ত ৪০৫টি গবেষণা প্রকল্প সম্পাদন করেছে। এর মধ্যে ৩১৫টি গবেষণা প্রকল্প সমাপ্ত হয়েছে এবং ৯০টি গবেষণা প্রকল্প চলমান রয়েছে। ২০২০ সাল পর্যন্ত ২৪৪ জন শিক্ষকের মধ্যে ১০৩জন শিক্ষক পিএইডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। পিএইচডি ডিগ্রিধারী সকলেই দেশ বিদেশে নানান গবেষণা কার্যক্রমের সাথে যুক্ত রয়েছেন। শিক্ষক ছাড়াও সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০ সাল পর্যন্ত মোট ২৭ জন শিক্ষার্থী পিএইচডি ডিগ্রি অর্জণের জন্য গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ইতোমধ্যে ৫ জন তাদের গবেষণা কার্যক্রম সম্পন্ন করে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তাঁরা সকলেই তাদের গবেষণা নিয়ে দেশ বিদেশের বিভিন্ন জার্নালে বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ প্রকাশ করেছেন। সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন জার্নালে ৩০০ এর অধিক গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করেছেন।

সিকৃবির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ মতিয়ার রহমান হাওলাদার আরো জানিয়েছেন, শিক্ষা ও গবেষনার মানের দিক দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাঙ্কিং গত ২ বছরে ৮ ধাপ এগিয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক গতি তরান্বিত করার জন্য সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ