সৌদিতে করোনার টিকা প্রয়োগ শুরু, পাচ্ছে বাংলাদেশিরাও

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসে ২০২০ ১০:১২

সৌদিতে করোনার টিকা প্রয়োগ শুরু, পাচ্ছে বাংলাদেশিরাও

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু করেছে সৌদি স্বাস্থ মন্ত্রণালয়। বিনামূল্যে সৌদি নাগরিকদের পাশাপাশি প্রবাসীরাও পাচ্ছেন কোভিট ১৯ এর এই টিকা। কোনো ধরনের ঝক্কি ঝামেলা ছাড়াই টিকার প্রথম ডোজ নিতে পেরে সন্তুষ্টি জানিয়েছেন বাংলাদেশিরা।

সিলেটের কাপতান হোসেন বলেন, গত ২৭ ডিসেম্বর করোনা ভাইরাসের প্রথম টিকা নিয়েছি আগামী ১৫ জানুয়ারি দ্বিতীয়টা নিতে হবে। এপসের মাধ্যমে আবেদন করে কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়া বিনা পয়সায় টিকা নেওয়ার ব্যবস্থা করায় সৌদি প্রশাসনকে ধন্যবাদ।

বরগুনার আব্দুস সালাম বলেন, আলহামদুলিল্লাহ ৷ করোনা ভাইরাসের টিকা নিলাম ৷ এতো চমৎকার ব্যবস্থাপনা ও কর্তব্যরত সকলের আন্তরিকতার জন্য ধন্যবাদ সবাইকে ৷ ধন্যবাদ সৌদি সরকার ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে।

ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার প্রথম চালান গত বুধবার দেশটিতে এসে পৌঁছায়। টিকা হাতে পাওয়ার পরদিনই তা দেওয়া শুরু করে সৌদি আরব। সৌদিতে প্রথমে টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী তৌফিক আল-রাবিয়া আছেন। লোকজনকে আশ্বস্ত ও উৎসাহিত করতে তিনি টিকা নিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমরা নিশ্চিত করছি যে এই টিকা নিরাপদ।’ এরপর টিকা নেন সৌদি যুবার মোহাম্মদ বিন সালমান। টিকা নেওয়ার জন্য লোকজনকে আগে নিবন্ধন করতে বলেছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। এই আহ্বানের পর প্রথম ২৪ ঘণ্টায় দেড় লাখের বেশি মানুষ টিকা নিতে নিবন্ধন করেছে।

মধ্যপ্রাচ্যে বাহরাইনের পর দ্বিতীয় দেশ হিসেবে সৌদি আরব গত সপ্তাহে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। তবে তারা বাহরাইনের আগেই এই টিকা পেয়ে তার প্রয়োগ শুরু করল।

তিন ধাপে টিকার কার্যক্রম পরিচালনা করবে সৌদি। প্রথম ধাপে ৬৫ বছর ও তার চেয়ে বেশি বয়সী নাগরিক-অধিবাসী, করোনার উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা পেশাজীবী, রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম, দীর্ঘস্থায়ী ও জটিল রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিরা প্রথমে টিকা পাবেন। সৌদি আরবে এখন পর্যন্ত ৩ লাখ ৬০ হাজার মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন ৬ হাজার ৯১ জন।