ছাতকের ভুইগাঁও গ্রামে একরাত্রে চারটি গরু চুরি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ২২ ডিসে ২০২০ ১২:১২

ছাতকের ভুইগাঁও গ্রামে একরাত্রে চারটি গরু চুরি

ছাতক প্রতিনিধি:-  ছাতকে গরু চুরির ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত এক সপ্তাহে কয়েক লক্ষ টাকা মূল্যমানের কয়েকটি গরু চুরি হয়েছে। এতে এলাকার মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। তারা রাতে পুলিশি টহল জোরদার করার দাবি জানিয়েছেন।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নের ভুইগাঁও গ্রামের মৃত হাজী আসরক আলীর ছেলে এলখাছুর রহমানের ঘোয়াল ঘরের দুটি দরজার কেলেম ভেঙে গরুগুলো চুরি করে নিয়ে যায়। এর মধ্যে দুটি বলদ, দুইটি গাভী গরু রয়েছে। মামুন যানান, গরু চুরি করে তারা প্রিকাপ করে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় শানুর আলী যানান, গভীর রাতে অনুমানিক ৩টার দিকে বুকারভাংঙ্গা ব্রিজে তিনি একটি লাল প্রিকাপ দেখেন উপরে চান্দোয়া দেয়া, পড়ে তিনি যানতে পাড়েন যে এলাকায় গরু চুরি হয়েছে, গাড়ি কে লক্ষ করেও অনেক জায়গা খুজেও গাড়ি কে ধরতে পারেন নি।

স্থানীয়রা জানান, প্রতিদিনই গরু চুরির ঘটনা ঘটছে ইউনিয়নের কোনো না কোনো গ্রামে। স্থানীয় একটি গরু চোরের সিন্ডিকেট এমনটা করছে বলে ধারণা তাদের। এই সিন্ডিকেটের কেউ গোয়াল থেকে গরু চুরি, কেউ গরু অন্যত্র নিয়ে যাওয়া, আবার কেউ বিভিন্ন বাজারের খসাই বা পাইকারের কাছে গরু বিক্রি করে থাকেন। এই সিন্ডিকেটদের সাথে সমাজের বিভিন্ন স্থরের লোকদের যোগাযোগ রয়েছে। এর ভাগবাটোয়ারা তাদের কাছে পৌঁছে বলে অভিযোগ অনেক ভোক্তভোগীর। স্থানীয় কয়েকজন চোর জেলার বিভিন্ন স্থানে গুরু ও ভেড়া বিক্রির সময় জনতার হাতে আটক হয়েছেন। এসব চোরদের আইনের আওতায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বিভিন্ন সময় চুরি হওয়া গরু তথ্য বের হয়ে আসবে বলে জানান তারা।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, ছাতক থানার এস আই অানোয়ার হোসেন, তিনি বলেন, লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে, আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যেমে গরুর উদ্ধার অভিযান অব্যহত রয়েছে।

এ ব্যাপারে ছাতক থানার ওসি নাজিম উদ্দিন বলেন গরু চুরির টেকাতে আমরা কাজ করছি। গোয়েন্দা তৎপরতার মাধ্যমে চোরদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ