অনলাইন গণমাধ্যম নিয়ে বাংলাদেশ আশার আলো দেখছে – অধ্যাপক জাকির হোসেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ২২ ডিসে ২০২০ ০৯:১২

সুরমাভিউ:-  বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সিলেট মহানগর শাখার সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন বলেছেন, অনলাইন গণমাধ্যম নিয়ে বাংলাদেশ আশার আলো দেখছে। এই প্যানডামিকের সময় যখন পৃথিবীর সকল প্রিন্ট মিডিয়া বন্ধ ছিল তখন অনলাইন গণমাধ্যম এক সেকেন্ডের জন্যও বন্ধ হয়নি। অনলাইনের মাধ্যমেই প্রতিনিয়ত আমরা তথ্য আদান-প্রদান করতে পেরেছি।পৃথিবীর কোথায় কি ঘটছে জানতে পেরেছি। তিনি বলেন, সিলেট সহ বাংলাদেশের প্রিন্ট মিডিয়া এসময় বন্ধ ছিল। পৃথিবীর কোথাও মুদ্রিত আকারে পত্রিকা বের করা সম্ভব হয়নি। এসময়ে অনলাইন গণমাধ্যমই সংবাদ ও অন্যান্য কাজে মুখ্য ভূমিকা রেখেছে। আর আমাদের দেশ বিশ্বপ্রযুক্তির ধারাবাহিকতায় চলেছিল বলেই তা সম্ভব হয়েছিল। তিনি বলেন, আওয়ামীলীগের নির্বাচনী মেনিফেস্টোতে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার ছিল।এর সুফল এখন আমরা সকলেই পাচ্ছি।

অধ্যাপক জাকির হোসেন গতকাল (২১ ডিসেম্বর) সোমবার সন্ধ্যায় অনলাইন নিউজ পোর্টাল সিলেটের খবর ২৪.কম এর ১০ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আয়োজিত এক “সুহৃদ আড্ডা ও বিজয়ের ৪৯ বছর পেরিয়ে” শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন।

সিলেটের খবর ২৪.কম এর সম্পাদক ও সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সহ -সভাপতি গোলজার আহমদ হেলালের সভাপতিত্বে ও পোর্টালের বার্তা সম্পাদক, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সদস্য জুনায়েদুর রহমানের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি আশি’র দশকের শক্তিমান কবি ও ঔপন্যাসিক মুহিত চৌধুরী, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি ও সিলেটের এপিপি এডভোকেট শাহজাহান চৌধুরী,সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) এর সিলেট ব্যুরো প্রধান মকসুদ আহমদ মকসুদ,সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সদস্য ও কানাইঘাট প্রেসক্লাব সভাপতি রোটারিয়ান শাহজাহান সেলিম বুলবুল, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি(নগর বিশেষ শাখা) সুদীপ দাস,সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সহ- সম্পাদক তাওহীদুল ইসলাম, সিলেটের হালচাল পত্রিকার প্রধাান সম্পাদক ও লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য জামাল উদ্দিন, সাপ্তাহিক জকিগঞ্জের ডাক পত্রিকার সম্পাদক রায়হান আহমদ।

সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের ড. রাগীব আলী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পোর্টালের নির্বাহী সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার এহসানুল হাসান খান রেজা।অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের কার্যকরী কমিটির সদস্য ডেইলী বিডিনিউজ ডট নেটের সম্পাদক ফারহানা বেগম হেনা,জাতীয় অনলাইন পোর্টাল নিরাপদ নিউজের সিলেট ব্যুরো প্রধান জহিরুল ইসলাম মিশু,নিউজ এ এর সম্পাদক এম এ ওয়াহিদ চৌধুরী, সিলেটের খবর ২৪.কম এর স্টাফ রিপোর্টার শেখ জাবেদ আহমদ, তানভীর আহমেদ জাকির, জাতীয় অনলাইন পোর্টাল দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস এর সিলেট প্রতিনিধি ডি এইচ মান্না প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সদস্য ও সিলেটের খবর২৪.কম এর সহকারী সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম সাদী, দৈনিক আলোকিত সিলেটের স্টাফ রিপোর্টার মোহাম্মদ আলমগীর, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সদস্য ও বিডিসিলেট নিউজের সম্পাদক মাহমুদ খান, সিলেটের খবর২৪.কম এর ক্রাইম রিপোর্টার ও জাতীয় দৈনিক বিশ্বমানচিত্রের সিলেট প্রতিনিধি এম এ হান্নান চৌধুরী, ডেইলি সিএন বাংলার স্টাফ রিপোর্টার নুরুল আলম আলমাস, দ্যা আর্থ অফ অটোগ্রাফ সম্পাদক আব্দুল কাদির জীবন প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক জাকির হোসেন সাংবাদিকতার মূল ধারায় সম্পৃক্ত থেকে কাজ করতে অনলাইন গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি আহবান জানান। সংবাদে মানুষের আস্থা ধরে রাখতে হলে মূল ধারার সাংবাদিকতা করতে হবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে সৃষ্টি করেছেন সাংবাদিকরা।তারা বঙ্গবন্ধু কে হাইলাইটস করতেন। সাংবাদিকরা সে সময়ে বঙ্গবন্ধুর কার্যক্রমকে পত্রিকার পাতায় ফুটিয়ে তুলে তুলে তাঁকে জাতির পিতায় পরিণত করেছেন।সাংবাদিকদের প্রচেষ্টার মাধ্যমেই জাতীয় মুক্তি আন্দোলনের নেতা তৈরী হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া, জহুর হোসেন চৌধুরী, মনসুর আলী, সন্তোষ দা’র মতো বরেণ্য সাংবাদিকরা বঙ্গবন্ধুর পেছনে ছিলেন বলেই তিনি সাহসী হতে পেরেছিলেন।

অধ্যাপক জাকির বলেন, আওয়ামীলীগে মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ও মাওলানা আব্দুর রশিদ তর্কবাগীসের মতো নেতা ছিলেন। আওয়ামীলীগ কখনো ইসলামের বিরোধী নয়। আজ যারা ইসলাম ইসলাম বলে আওয়ামীলীগ কে ইসলাম বিরোধী করতে চায় তারা অন্য একটি রাষ্ট্রের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চায়। সেই পরাজিত অপশক্তির অপমৃত্যু ঘটেছে ১৯৭১ সালে।

অধ্যাপক জাকির আরো বলেন, বাংলাদেশ এখন অগ্রগতির মহাসড়ক ও টেকসই উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাওয়ার এ পদযাত্রায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি উন্নত ও সোনার বাংলাদেশ গড়তে অগ্রগতির মহাসড়কে ধাবমান টেকসই উন্নয়নের গতিধারায় অংশীদার হওয়ার জন্য সাংবাদিকদের আহবান জানান।
তিনি তাঁর বক্তব্যে সাংবাদিকদের সমাজের বিবেক, সমাজের দর্পণ, সমাজের পাঞ্জেরী, সমাজের দিশারী অভিহিত করে বলেন, আপনাদের কলমের খোঁচায় সমাজ এগিয়ে যায়। কলমটা উল্টো চললে সমাজটাও উল্টো চলে যায়। তিনি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কবি মুহিত চৌধুরী বলেন,অনলাইন একটি নতুন ও সর্বাধুনিক গণমাধ্যম। এটি একটি নতুন আইডিয়া। এটিকে বলা হয় নিউ মিডিয়া। এটি অত্যন্ত শক্তিশালী ও যুগোপযোগী। তিনি বলেন, ফেসবুক লাইভ আর অনলাইন সাংবাদিকতা এক নয়। কয়েকটি কাগজ ছাপিয়ে বের করলে যেমন সংবাদপত্র হয় না, তেমনি ফেসবুকে লাইভ কিংবা কিছু লিখলেই অনলাইন সাংবাদিকতা হয় না। সাংবাদিকতার চিরাচরিত নিয়মেই সংবাদ রচনা ও প্রকাশ করতে হয়। তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি নিয়ে অনেকেই ঠাট্টা মশকরা করেছিল। কিন্তু ডিজিটাল বাংলাদেশ না হলে এ প্যানডামিকের সময় বাংলাদেশ আটকে যেত। তিনি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক কুটনীতির সুফল তুলে ধরে বলেন, দেশের অর্থে আজ পদ্মা সেতুর মতো মেগা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। যা দেখে পাকিস্তানের মতো রাষ্ট্রকেও আজ আক্ষেপ করতে হয়। অথচ পাকিস্তানীরা আমাদের শ্রেষ্ঠ সন্তান বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করে এ দেশকে মাটির সাথে মিশিয়ে দিতে চেয়েছিল।উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধিতে ভারতের মত দেশ ও আমাদের পেছনে। তিনি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে স্ব স্ব জায়গা থেকে সকলকে কাজ করার আহবান জানান। তিনি সিলেটের খবরের দশম বর্ষে পদার্পণ আরো বর্ণিল হোক এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে পোর্টাল সম্পাদক গোলজার আহমদ হেলাল আগত অতিথিবৃন্দ সহ সকলকে ধন্যবাদ জানান এবং তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। আগামী দিনের পথচলায় সিলেটের খবরের পাশে থাকতে ও সার্বিক সহযোগিতা করতে সকলের প্রতি তিনি অনুরোধ জানান।
অনুষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দকে ফুল দিয়ে বরণ করেন সিলেটের খবরে কর্মরত সাংবাদিকগণ।সভার শেষলগ্নে প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ কেক কেটে মনোমুগ্ধকর ও আনন্দঘন এ অনুষ্ঠানকে আরো প্রাণবন্ত করে তুলেন।