কুলাউড়ার বরমচাল ইউনিয়নে জামানত হারালেন নৌকার প্রার্থী

প্রকাশিত:সোমবার, ১৪ ডিসে ২০২০ ০৯:১২

কুলাউড়ার বরমচাল ইউনিয়নে জামানত হারালেন নৌকার প্রার্থী

ইউপি চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে জামানত খোয়ালেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী। শুধু তাই নয় অংশগ্রহণকারী ৪ প্রার্থীর ভোটের হিসেবেও তিনি হন চতুর্থ। বিষয়টি এখন টক অব দ্য জেলায় পরিণত হয়েছে। দলের তৃণমূল থেকে জেলা ও উপজেলার নেতাকর্মীরা বিষয়টি নিয়ে বিব্রত ও ক্ষুব্ধ। চলছে নানা আলোচনা, সমালোচনা ও চুলচেরা বিশ্লেষণ। কারণ ওই উপনির্বাচনে জেলা, উপজেলা ও সিলেট বিভাগেরও অনেক নেতাকর্মী প্রার্থীর সঙ্গে ও পক্ষে গণসংযোগ ও প্রচার প্রচারণায় অংশ নেন। জেলার কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে জামানত হারান নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী অধ্যাপক সিএম জয়নাল আবেদীন। প্রদত্ত (কাষ্টিং) ভোটের আট ভাগের এক ভাগ ভোট না পাওয়ায় তিনি জামানত খোয়ান।

জানা যায়, ওই উপনির্বাচনে ৪ জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করেন। তারা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী অধ্যাপক সি এম জয়নাল আবেদীন। নৌকা প্রতীকে তার প্রাপ্ত ভোট ৯৬৬। বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মো. আব্দুল মোক্তাদির মুক্তারের প্রাপ্ত ভোট ৩২৪০। স্বতন্ত্র প্রার্থী খোরশেদ আহমদ খানের (সুইট) চশমা প্রতীকে প্রাপ্ত ভোট ৩২৮৮। স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. খয়রুল আমিন চৌধুরীর (টিপু) আনারস প্রতীকে প্রাপ্ত ভোট ১০১৮। জানা যায়, ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি প্রবীণ রাজনীতিবিদ মো. আহবাব চৌধুরী শাহাজান এর মৃত্যুজনিত কারণে ওই পদটি শূন্য হলে ১০ই ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে খোরশেদ আহমদ খান সুইট তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে ৪৮ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হন। ওই নির্বাচনে ৪ জন অংশগ্রহণকারীর মধ্যে ৪র্থ স্থান অর্জন করে জামানত খোয়ান নৌকার প্রার্থী অধ্যাপক সিএম জয়নাল আবেদীন ও তৃতীয়স্থান অর্জনকারী আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. খয়রুল আমিন চৌধুরী টিপু। তারা জনপ্রতি ১০৬৪ ভোট পেলে দু’জনেরই জামানত বাঁচতো। ওই দুই প্রার্থীর জামানত খোয়ানোর বিষয়টি গণমাধ্যমকর্মীদের নিশ্চিত করেন কুলাউড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আহসান ইকবাল। জেলা ও উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলার কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল ইউনিয়নের মোট ভোটার ১৩ হাজার ৪শ’ ৩৬ জন। ১০ই ডিসেম্বরের উপনির্বাচনে প্রদত্ত (কাষ্টিং) বৈধ ভোট ৮ হাজার ৫শ’ ১২। বাতিল ভোট ৮২। ভোট কেন্দ্র ছিল ৯টি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ