দুর্ঘটনায় আহত হুইল চেয়ারে বন্দী প্রেমিককেই বিয়ে তরুণীর

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ২৬ নভে ২০২০ ০৪:১১

দুর্ঘটনায় আহত হুইল চেয়ারে বন্দী প্রেমিককেই বিয়ে তরুণীর

দুর্ঘটনায় পড়ে শয্যাশায়ী তরুণ, হুইল চেয়ারে বন্দী জীবন তার। তছনছ হয়ে গেছে ভবিষ্যৎকে ঘিরে যাবতীয় স্বপ্ন। ভেঙে গেল প্রেমিকাকে বিয়ে করার যাবতীয় পরিকল্পনা। সবকিছু মিলিয়ে অনিশ্চিত জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি। এমন পরিস্থিতিতে প্রেমিকাই তাকে আপন করে নিলেন।

ভারতীয় এক সংবাদ মাধ্যম জানায়, ভারতের চণ্ডীগড়ের বাসিন্দা ওই তরুণের নাম রাহুল। সোমবার একটি রিহ্যাব সেন্টারে তাকে বিয়ে করেন প্রেমিকা অনামিকা। ২৯ বছর বয়সী রাহুল ২০১৬ সালে দুর্ঘটনার মুখে পড়েন। দুর্ঘটনার পর রাহুলের নিম্নাঙ্গে পক্ষাঘাত হয়। তারপর থেকেই থমকে গিয়েছিল তার জীবন।

এদিকে, রাহুল-অনামিকা ছোটবেলা থেকেই প্রতিবেশী। ২০০৮ সাল থেকে প্রণয়ের সম্পর্কে জড়ান তারা। সেই থেকেই বিয়ের স্বপ্ন দেখছিলেন দুজনে। কিন্তু আচমকাই সব স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয়ে যায় এক দুর্ঘটনায়। দুর্ঘটনার পর রাহুলের সঙ্গে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অনামিকা কথা বলতেন। তাকে মনোবল জোগাতেন।

রাহুলের বাবা ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কর্মরত। তার মা ও বোন শিক্ষকতার সঙ্গে যুক্ত। দুপুরে বাড়িতে একা থাকতেন রাহুল। সেই সময় অনামিকা সময় দিতেন রাহুলকে।

২০১৮ সালে এ তরুণের বাবার বদলি হয়। পুরো পরিবার কানপুরে চলে যান তারা। এরপরেও প্রেমিকের পিছু ছাড়েননি অনামিকা। চণ্ডীগড় থেকে কানপুর এসে রাহুলকে বিয়ের প্রস্তাব দেন তিনি।

অনামিকার কথায়, রাহুলের মতো ভালো মানুষ পাওয়া যায় না। এটাই আমার সবচেয়ে বড় পাওনা। অনামিকা বাবা-মাকে হারিয়েছেন অনেকদিন। তাই এখন মনের মানুষ রাহুলের সঙ্গে বাকিদিন কাটিয়ে দিতে চান তিনি।