বিশ্বনাথে বাওনপুর স্কুল কমিটির বিদ্যুৎসাহী সদস্য নির্বাচন নিয়ে দু’পক্ষের উত্তেজনা নির্বাচন স্থগিত চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত আবেদন

প্রকাশিত:বুধবার, ১১ নভে ২০২০ ০৩:১১

বিশ্বনাথে বাওনপুর স্কুল কমিটির বিদ্যুৎসাহী সদস্য নির্বাচন নিয়ে দু’পক্ষের উত্তেজনা নির্বাচন স্থগিত চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত আবেদন
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:-  সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের বাওনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎসাহী সদস্য নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে গত কয়েক দিন ধরে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। একটি পদে একজনকে নির্বাচিত করার জন্য একজন ভোটার তিনটি ভোট দিতে পারবেন বলে ঘোষণা আসার কারণে এলাকায় ওই উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে বলে জানাগেছে। এদিকে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রাখার ও শান্তিপূর্ণভাবে বিষয়টির সমাধানের লক্ষ্যে একটি পক্ষ নির্বাচন স্থাগিত করার দাবিতে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত আবেদন করেছেন।
বুধবার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবরে ওই লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। আর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, খাজাঞ্চী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, বিশ্বনাথ প্রেস ক্লাব, বিশ্বনাথ সাংবাদিক ইউনিয়ন, খাজাঞ্চী ইউনিয়নের বাওনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বরাবরে লিখিত অভিযোগের অনুলিপি প্রদান করা হয়েছে।
লিখিত অভিযোগে বিদ্যুৎসাহী সদস্য পদপ্রার্থী আব্দুল ওয়াদুদ উল্লেখ করেছেন, আগামী বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) খাজাঞ্চী ইউনিয়নের বাওনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎসাহী সদস্য নির্বাচিত করার লক্ষ্যে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। ওই পদের জন্য তিনি (ওয়াদুদ)’সহ প্রার্থী হয়েছেন ৪ জন। কিন্তু কয়েকজন প্রার্থীর প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারী অভিভাবক (ভোটার) নন।
তাছাড়া একজন ভোটার ৩ জন প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন, এতে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী বিদ্যুৎসাহী সদস্য পদে এসএসসি পাশ উল্লেখ থাকলে এবং দাখিল পাশ বা সমমানের কথা উল্লেখ না থাকার পরও দাখিল পাশ সার্টিফিকেট গ্রহন করা হয়েছে। কিন্তু রহস্যজনকভাবে স্কুলের প্রতিনিধির পরিবর্তে মাদ্রাসার প্রতিনিধি আবার গ্রহনযোগ্য নয় বলে কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত দিয়েছেন, যা তার (ওয়াদুদ) দৃষ্টি সাংঘর্ষিক। আর তাই ঘোষিত নির্বাচন স্থগিত করে নিতিমালা প্রয়োগপূর্বক পরবর্তিতে নির্বাচন গ্রহনের জন্য তিনি (ওয়াদুদ) প্রশাসনের কাছে দাবী জানিয়েছেন।
নির্বাচন স্থগিতের লিখিত আবেদন পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বর্ণালী পাল বলেন, নিতিমালা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ